পোষা প্রাণী হিসেবে যে ৯ কারণে কুকুর ভালো

Spread the love


বহু মানুষেরই পোষা প্রাণী হিসেবে বিড়াল পছন্দ, কারো আবার কুকুরও পছন্দ। এক্ষেত্রে কার কোন প্রাণীটি পছন্দ হবে, তা একান্তই নিজস্ব ব্যাপার। তবে কয়েকটি কারণ বিবেচনা করে কুকরকে পোষা প্রাণী হিসেবে অনেকেরই পছন্দ। এসব কারণগুলো হলো-

১. হাসির জন্য কুকুর
এক পাইলট জরিপে দেখা গেছে মানুষকে হাসাতে কুকুর পারদর্শী। বিড়ালের তুলনায় কুকুর এ কাজটি বেশি বেশি করে থাকে।

২. কুকুর বন্ধু বাড়ায়
বিড়ালের তুলনায় নিত্যনতুন মানুষকে সহজেই গ্রহণ করতে পারে কুকুর। আর এ কারণে কুকুর আপনার বন্ধু বাড়াতে সহায়তা করবে।

৩. কুকুরের ঘ্রাণশক্তি
কুকুরের প্রখর ঘ্রাণশক্তি রয়েছে। এর সাহায্যে কুকুর নানা কাজে মানুষকে সহায়তা করতে পারে। বিড়ালের ঘ্রাণশক্তি মানুষের সেভাবে কাজে লাগে না।

৪. কুকুর প্রযুক্তিগতভাবে অগ্রগামী
বিড়ালের তুলনায় কুকুর সহজেই নানা প্রযুক্তিগত বিষয় শিখতে পারে। এ কারণে তারা প্রযুক্তির সঙ্গে সহজেই মানিয়ে নিতে সক্ষম হয়। বিভিন্ন গবেষণাতেও বিষয়টির প্রমাণ মিলেছে।

৫. সুস্থ থাকতে সহায়তা
কুকুর এর মালিককে সুস্থ থাকতে সহায়তা করে। এটি নিয়মিত পার্কে বা খোলা জায়গায় হাঁটাহাঁটি করতে চায়। এর ফলে কুকুরের পাশাপাশি তার মালিকেরও হাঁটাহাঁটি কিংবা ব্যায়ামের অভ্যাস গড়ে উঠতে পারে।

৬. নানা কাজে পারদর্শী
কুকুর যথাযথ প্রশিক্ষণ পেলে নানা কাজে পারদর্শী হয়ে উঠতে পারে। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কুকুর অন্ধদের চলাচলে কুকুর সহায়তা করে, বোমা, অস্ত্র কিংবা অন্য যে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত জিনিস খুঁজে বের করতে পারে।

৭. প্রবল অনুভূতি
যে কোনো বিপদের আগেই অনেক কুকুর তা টের পেয়ে যায়। কুকুরের এ অনুভূতিকে ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়ের সঙ্গে তুলনা করা যেতে পারে। ন্যাশনাল জিওগ্রাফিকের বিভিন্ন ডকুমেন্টারিতেও তা উঠে এসেছে। প্রশিক্ষণ পেলে কুকুর জরুরি ফোন করতেও সক্ষম।

৮. প্রাণী বাঁচাতে সহায়তা
বিভিন্ন বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীকে বাঁচাতে সহায়তা করে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কুকুর। যেমন নানা বিলুপ্ত প্রাণীদের পাহারা দেওয়ার কাজে কুকুর ব্যবহার করা হচ্ছে।

৯. কুকুর বিশ্বস্ত
কুকুর বিশ্বস্ততার সঙ্গে তার মালিকের পক্ষে কাজ করে। সারা জীবনে একটি কুকুর এভাবে তার মালিকের বাড়ি পাহারাসহ যত কাজ করে তা বলেও শেষ করা যাবে না।



Spread the love