যেভাবে আফ্রিকার শীর্ষ ধনী নারী হয়েছেন তিনি


আফ্রিকার শীর্ষ ধনী নারী ইসাবেল ডস সান্টোস। যেভাবে তিনি আফ্রিকার সবচেয়ে ধনী নারী হয়েছেন, সেই গোপন তথ্য এবার ফাঁস হয়েছে।

সোমবার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, নিজ দেশের সম্পদ শোষণ ও দুর্নীতি করে ইসাবেল ডস সান্টোস তাঁর ভাগ্য বদল করেছেন। ইসাবেলের বাবা ছিলেন আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় দেশ অ্যাঙ্গোলার প্রেসিডেন্ট। ওই সময় প্রাকৃতিক সম্পদে সমৃদ্ধ দেশটির ভূমি, তৈল, হীরা ও টেলিকম ব্যবসার নামে ইসাবেলা দেশের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

ফাঁস হওয়া তথ্যে বলা হয়, ইসাবেল ও তাঁর স্বামী মূল্যবান রাষ্ট্রীয় সম্পদ ক্রয়ের অনুমোদন পান। যদিও এসব অভিযোগকে মিথ্যা আখ্যা দিয়ে ওই নারী বলেন, অ্যাঙ্গোলা সরকারের রাজনৈতিক রোষানলের শিকার হয়েছেন তিনি।


ইসাবেল যুক্তরাজ্যে বাড়ি বানিয়েছেন এবং সেন্ট্রাল লন্ডনে ব্যয়বহুল সম্পত্তির মালিক হয়েছেন। দুর্নীতির অভিযোগে তাঁর অপরাধ তদন্ত করছে অ্যাঙ্গোলা কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে দেশে থাকা তাঁর সম্পদ হস্তান্তর বা লেনদেন নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার দুর্নীতিবিরোধী বেসরকারি প্রতিষ্ঠান করাপশন ওয়াচের প্রধান অ্যান্ড্রু ফেইনস্টাইন বলেন, ইসাবেল কীভাবে তাঁর দেশকে শোষণ করেছেন সেই তথ্যই বেরিয়ে এসেছে।

ইসাবেলার বাবা অ্যাঙ্গোলার সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসে এদুয়ার্দো ডস সান্টোস। তিনি ১৯৭৯ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত অ্যাঙ্গোলার ক্ষমতায় ছিলেন।


অনুসন্ধানী সাংবাদিকদের সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্ট (আইসিআইজে) ‘পানামা পেপারস’ ফাঁসের মাধ্যমে ২০১৬ সালে হইচই ফেলে দেয়। এবার তারা সাত লক্ষাধিক তথ্য ফাঁস করেছে। যেটার নাম দেওয়া হয়েছে ‘লুয়ান্ডা লিকস’। এর মাধ্যমে আফ্রিকার এই ধনকুবের নারীর দুর্নীতি ও কেলেঙ্কারির তথ্য ফাঁস হলো।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।