plan cul gratuit - plan cul toulouse - voyance gratuite amour

‘গ্রেপ্তার করতে হবে অর্জুন সিংকে’, ভাটপাড়া ঘুরে দাবি তৃণমূলের পরিষদীয় দলের

Spread the love

‘গ্রেপ্তার করতে হবে অর্জুন সিংকে’, ভাটপাড়া ঘুরে দাবি তৃণমূলের পরিষদীয় দলের

‘‘বারাকপুরের সাংসদের নেতৃত্বেই ভাটপাড়ায় হামলা চালিয়েছে দুষ্কৃতীরা৷ গ্রেপ্তার করতে হবে অর্জুন সিংকে৷’’ চলতি মাসে উত্তপ্ত হয়ে ওঠা ভাটপাড়ার বর্তমান পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে গিয়ে এমন দাবিতেই সরব হলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম৷ নিশানা করলেন বিজেপিকে৷ প্রতিশ্রুতি দিয়ে জানালেন, এক সপ্তাহ পর আবার ভাটপাড়ায় যাবেন তৃণমূলের প্রতিনিধিরা৷

শুক্রবার ভাটপাড়ায় সার্বিক অবস্থা পরিদর্শন করে রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘এলাকায় শান্তি ফিরছে৷ পুলিশ ও প্রশাসনকে আইন মেনে কাজ করতে বলা হয়েছে৷ গুন্ডাদের গ্রেপ্তার করার এবং মজুত অস্ত্র-বোমা উদ্ধারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রশাসনকে৷’’ একই কথা বলেছেন রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমও৷ বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিংকে নিশানা করে তিনি জানান, ‘‘আমরা কিছুতেই ভাটপাড়াতে অরাজকতা সৃষ্টি করতে দেব না৷ এক সপ্তাহ পর আবার ফিরব৷ বিজেপি এখানে সন্ত্রাস চালাচ্ছে৷ উত্তরপ্রদেশ, বিহার থেকে লোক এনে হিংসার পরিবেশ তৈরি করছে৷ কেবল মুসলমান নয়, বাঙালিদেরও মারা হয়েছে৷ অর্জুন সিংয়ের ক্রিমিনাল বাহিনীর কাছে অস্ত্র মজুত রয়েছে৷ অর্জুন সিংকে গ্রেপ্তার করতে হবে৷ ওর ক্ষমতা নেই এখানে শান্তি ফেরাতে পারবে৷ ভাটপাড়ায় শান্তি ফেরাতে তৎপর রাজ্য৷ সারা বাংলায় বিজেপি সাম্প্রদায়িক ভেদাভেদ সৃষ্টির চেষ্টা করছে৷ যা রুখে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷’’ এখানেই শেষ নয়, কলকাতার মেয়র আরও জানান, ভাটপাড়ায় সংঘর্ষের ঘটনায় মৃতদের পরিবারকে আড়াই লক্ষ টাকা করে আর্থিক সাহায্য দেবে রাজ্য সরকার৷ পরিবারের একজনকে সরকারি চাকরি দেওয়া হবে৷ আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে ক্ষতিগ্রস্থদেরও৷ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম তাঁকে গ্রেপ্তারির দাবি তুললেও, বিষয়টিকে গ্রাহ্য করছেন না বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিং৷ কলকাতার মেয়রকে পালটা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে তিনি বেলন, ‘‘ক্ষমতা থাকলে গ্রেপ্তার করে দেখাক৷’’

এদিন প্রথমেই কাঁকিনাড়া স্টেশন থেকে শুরু করে ভাটপাড়ার একাংশ ঘুরে দেখেন মন্ত্রী তথা কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম, সুজিত বসু, ব্রাত্য বসু, পূর্ণেন্দু বসু, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, তাপস রায়, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যরা৷ এলাকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেন তাঁরা৷ যে দোকান থেকে উত্তেজনার সূত্রপাত হয়, সেই দোকানটি এবং আশপাশের অঞ্চল ঘুরে দেখেন তাঁরা৷ মানুষের মধ্যে তৈরি হওয়া আতঙ্ক কাটাতে ঘরে ঘরে গিয়ে মানুষের অনুযোগ শোনেন রাজ্যের মন্ত্রীরা৷ এরপরই সোজা ভাটপাড়া থানায় যান তাঁরা৷ সেখানে তাঁরা কথা বলেন, বারাকপুরের নয়া পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মার সঙ্গে৷ সূত্রের খবর, এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে তাঁদের মধ্যে কথা হয়েছে৷ এলাকায় দ্রুত শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে প্রশাসনকে সব রকমের ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রীরা৷

আপনার মন্তব্য

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।