চলে গেলেন এক সময়ে পর্দা কাঁপানো নায়িকা


চলে গেলেন এক সময়ে পর্দা কাঁপানো নায়িকা

সারা দেশ এখন করোনা নিয়ে প্রবল উদ্বেগে দিন কাটাচ্ছে। বাড়িতেই হয়তো কাটাচ্ছেন সকলে। তবে অন্য কোনও দিকে নজর দেওয়ার সময়ও নেই। এই দোলাচলের মধ্যেই চলে গেলেন বলিউডের এক সময়ের সুন্দরী নায়িকা নিম্মি। সাদা কালো সিনেমার যুগ থেকে শুরু করে রঙিন। এই বিশাল সময়ে বলিউডে একের পর এক সিনেমায় তাঁর উজ্জ্বল উপস্থিতি নজর কেড়েছে। নায়িকা হিসাবে বলিউডে অন্যতম সফল অভিনেত্রী তিনি। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর।

১৯৩৩ সালে আগ্রায় এক মুসলিম পরিবারে জন্ম হয় নওয়াব বানু-র। পরে যিনি বলিউডে নিম্মি নামে খ্যাত হন। খুব কম বয়সে মাকে হারানোর পর তিনি চলে যান তাঁর মামাবাড়ি অ্যাবোটাবাদে। সেখানেই বড় হয়ে উঠছিলেন। কিন্তু ১৯৪৭ সালে দেশ ভাগের উত্তাল সময়ে ঠাকুমার হাত ধরে চলে আসেন বম্বেতে। সেখানেই থাকতে শুরু করেন। তাঁর দিদি ছিলেন অভিনেত্রী। আর জামাইবাবু ছিলেন বিখ্যাত গায়ক। সেইসূত্রেই তিনি বলিউডে জায়গা করে নেন।


১৯৪৯ সালে রাজ কাপুরের বরসাত সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ দিয়ে তাঁর বলিউড ডেবিউ হয়। সেই বরসাত সুপারহিট হয়। তখনও তিনি নওয়াব বানু। ওই সিনেমায় অভিনয়ের পর রাজ কাপুরই তাঁর নাম দেন নিম্মি। তারপর থেকে সিনেমার পর্দায় তিনি হয়ে যান নিম্মি। পঞ্চাশের দশকে তখন পর্দা কাঁপাচ্ছেন রাজ কাপুর, দেব আনন্দ ও দিলীপ কুমার। এই ৩ মহাতারকার সঙ্গেই কাজ করেন তিনি। সজা, দিদার, দাগ, আন, অমর, আকাশদীপ সহ একের পর এক সিনেমা করে গেছেন এই সুন্দরী নায়িকা।

১৯৬৫ সালে বিয়ে করেন স্ক্রিপ্ট লেখক আলি রাজাকে। এমন এক প্রতিভাময়ী সুন্দরী অভিনেত্রীর প্রয়াণে বলিউড শোকস্তব্ধ। গত বুধবার সন্ধেয় তাঁর মুম্বইতে মৃত্যু হয়। তাঁর মৃত্যুতে প্রথম শোক ব্যক্ত করেন মহেশ ভাট। তারপর একে একে বিভিন্ন সময়ের বলিউড ব্যক্তিত্বরা ট্যুইট করে শোক প্রকাশ করেন। এখন যখন গোটা দেশ ঘরবন্দি তখনই চলে গেলেন এই বলিউড তারকা। – সংবাদ সংস্থার সাহায্য নিয়ে লেখা

সুত্র: নীলকণ্ঠ.in

আপনার মন্তব্য

Recommended For You