করোনা’র প্রভাবে জি-২০ দেশগুলির মধ্যে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধি সর্বাধিক: রিপোর্ট

Advertisement

নয়াদিল্লি: দিনে দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দেশে বাড়লেও, ভারতের সর্বাধিক আর্থিক বৃদ্ধি হবে জি২০ দেশগুলির মধ্যে। এমনই রিপোর্ট দিচ্ছে, ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট(ইআইইউ)। যদিও ওই রিপোর্ট জানিয়েছে, করোনা অতি মহামারীর প্রভাবে ভারতের জিডিপি বৃদ্ধি কমে আসবে ২.১ শতাংশে। যেখানে আগে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল এই বৃদ্ধির হার ৬ শতাংশ।

এটা ঘটনা যদি এই ভবিষ্যত্‍ বাণী অনুসারে ভারতের জিডিপি বৃদ্ধির হার কমে আসে ২.১ শতাংশ তা অবশ্যই চিন্তার বিষয়। কিন্তু দুনিয়াজুড়ে যে মন্দা দেখা দিয়েছে তার ফলে ইউ এস, ইউরোপ, ল্যাটিন আমেরিকা যা অবস্থা হচ্ছে তার তুলনায় কম। ফলে ভারতের সর্বাধিক বৃদ্ধি হবে। ওই রিপোর্ট মনে করছে, জি২০ দেশগুলির মধ্যে ভারত, চিন এবং ইন্দোনেশিয়ায় বৃদ্ধি হবে। অন্যদিকে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা হবে ইতালির যেখানে বৃদ্ধির বদলে ৭ শতাংশ সংকোচন হবে অর্থনীতিতে। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে জি২০ সকল সদস্য দেশগুলি মন্দার কোপে পড়বে বলে ইআইইউ রিপোর্ট জানিয়েছে।


ওই রিপোর্ট জানাচ্ছে, করোনাভাইরাস অতি মহামারীর আকার ধারণ করায় সব দেশের বৃদ্ধির ভবিষ্যত্‍ বাণী পর্যালোচনা করা হয়েছে। আর তা দেখতে গিয়ে হতাশ জনক ফল মিলেছে। জি২০ দেশগুলির মধ্যে তিনটি দেশ বাদে বাকি সবগুলি অর্থনীতি মন্দার মুখোমুখি‌ হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। ওই রিপোর্ট জানাচ্ছে গোটা দুনিয়ার অর্থনীতিতে ২.২ শতাংশ সংকোচন হতে পারে। ইআইইউ ভবিষ্যত্‍বাণী করেছে মার্কিন অর্থনীতি ২.৮ শতাংশ সংকোচন হতে পারে এই বছরে। ওই দেশের প্রশাসন প্রাথমিকভাবে মনে করেছিল করোনা ভাইরাসের প্রভাব সামান্য আর তার ফলেই এই রোগ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে সে দেশে।

এদিকে সম্প্রতি আইএমএফ প্রধান অনলাইনে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়েছেন, এটা স্পষ্ট যে গোটা দুনিয়া এখন মন্দার মধ্যে ঢুকে পড়েছে।‌যা অবস্থা হচ্ছে সেটা ২০০৯ সালের গোটা বিশ্বের আর্থিক সংকটের চেয়েও ভয়াবহ হবে বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন। ‌ যেভাবে গোটা দুনিয়ার অর্থনীতি হঠাত্‍ স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে তার ফলে ‌ গোটা আর্থিক বাজারকে উঠে দাঁড়াতে ২.৫ ট্রিলিয়ন ডলার প্রয়োজন হবে বলে আইএমএফ -এর প্রধান জানিয়েছেন।

সুত্র: কলকাতা24×7


Recommended For You