খেলা

শ্রীলঙ্কায় আইপিএল আয়োজন নিয়ে ভাবছে না বিসিসিআই ! পরবর্তী আলোচনা সেপ্টেম্বরে !

কলকাতা: ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই আইপিএল আয়োজন নিয়ে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের প্রস্তাব কার্যত নাকচ করে দিল বিসিসিআই। বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে, এই মুহূর্তে আইপিএল শ্রীলঙ্কায় হওয়ার কোনও আলোচনা হয়নি। শ্রীলঙ্কা বোর্ডের তরফ থেকে কোনও প্রস্তাব লিখিত আকারে আসেনি। বিসিসিআইয়ের এক কর্তা সংবাদ সংস্থাকে জানান, “কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে গোটা বিশ্ব। এরমধ্যে আইপিএল ভবিষ্যত্‍ নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট ভাবনা চিন্তা করছে না।” বোর্ড কর্তা আরও জানান, “শ্রীলঙ্কা বোর্ডের পক্ষ থেকে এরকম কোনও প্রস্তাব বিসিসিআইয়ের কাছে আসেনি। তাই এই নিয়ে আলোচনা কোনও মানেই নেই।”

বৃহস্পতিবারই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে সরকারিভাবে জানানো হয়, বর্তমান পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য আইপিএল১৩ পিছিয়ে দেওয়া হলো। আইপিএল নিয়ে পরবর্তী আলোচনা হবে সেপ্টেম্বরে। এরপরই শ্রীলঙ্কা বোর্ডের পক্ষ থেকে সেদেশে আইপিএল আয়োজন করার ব্যাপারে প্রস্তাব দেন প্রেসিডেন্ট শামি সিলভা।

বৃহস্পতিবার সংবাদ সংস্থার খবরে প্রকাশ, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে করোনা পরিস্থিতি সবচেয়ে ভালো শ্রীলঙ্কার। সবশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী শ্রীলঙ্কায় কোভিড-১৯ আক্রান্ত ২৩৭ জন। নতুন করে কেউ আক্রান্ত হয়নি বৃহস্পতিবার। মারা গেছেন ৭ জন। এজন্যই আইপিএল আয়োজনের সাহস দেখাতে পারছে শ্রীলঙ্কা।

২৯ মার্চ থেকে আইপিএলের ১৩ তম মরশুম শুরু হওয়ার কথা ছিল। করোনা অতিমারির জেরে প্রাথমিকভাবে ১৫ এপ্রিল অবধি পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল টুর্নামেন্ট আর এরপর সেটা ৩ মে অবধি লকডাউনের দ্বিতীয় পর্ব ঘোষণার পর আইপিএল অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড প্রেসিডেন্ট শামি সিলভা জানিয়েছিলেন, “আইপিএল যদি বাতিল হয় তাহলে বিসিসিআই ও কর্ণধারদের ৫০০ মিলিয়ন ডলার ক্ষতি হবে । তাদের ক্ষতির পরিমাণ কিছুটা কমবে সেটা যদি অন্য দেশে আয়োজন করা হয় তাহলে ক্ষতির পরিমাণ কিছুটা হলেও কম হবে।” ২০০৯ সালে আইপিএল দক্ষিণ আফ্রিকায় আয়োজন করে বোর্ড এবং ২০১৪ সালে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে আইপিএলের প্রথম দুটি সপ্তাহ আয়োজিত হয়েছিল ।

সুত্র: News18

আরও পড়ুন ::

Back to top button