ঝাড়গ্রাম

বাজারে মিলছে না মাস্ক, ঝাড়গ্রামে ৯ হাজার মাস্ক পাঠালেন শুভেন্দু অধিকারী

বাজারে মিলছে না মাস্ক, ঝাড়গ্রামে ৯ হাজার মাস্ক পাঠালেন শুভেন্দু অধিকারী

স্বপ্নীল মজুমদার, ঝাড়গ্রাম: ঝাড়গ্রাম জেলার বাসিন্দাদের জন্য ৯ হাজার মাস্ক পাঠালেন তৃণমূলের জেলা পর্যবেক্ষক তথা পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। শনিবারই ব্যক্তিগত প্রতিনিধির মাধ্যমে জেলায় মাস্কগুলি পাঠিয়েছেন মন্ত্রী। এদিনই জেলার ৮টি ব্লক ও ঝাড়গ্রাম শহর নেতৃত্বকে মাস্কগুলি বিলি করার জন্য দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি ব্লকের জন্য দেওয়া হয়েছে এক হাজার করে মাস্ক। এবং শহর ও সংলগ্ন এলাকার জন্য এক হাজার মাস্ক দেওয়া হয়েছে। তৃণমূলের ঝাড়গ্রাম জেলা সভাপতি বীরবাহা সরেন টুডু জানান, যাঁদের কাছে মাস্ক নেই, এমন মানুষজনকেই মাস্ক দেওয়া হবে।

মাস্কের সঙ্কট দেখা দিয়েছে ঝাড়গ্রাম জেলায়। ওষুধ দোকানগুলিতে মাস্ক নেই। স্বাস্থ্য দফতরে চেয়েও মাস্ক পাচ্ছেন না সাধারণ মানুষ। অথচ মাস্ক না-পরে রাস্তায় বেরোলে ধরপাকড় করছে পুলিশ। মাস্ক না পরলে বাজারে মিলছে না কাঁচা আনাজ কিংবা জরুরি পরিষেবার সামগ্রী। এই পরিস্থিতিতে মন্ত্রীর পাঠানো মাস্ক পেয়ে উপকৃত হবেন বহু সাধারণ মানুষ।

ঝাড়গ্রাম জেলা তথা জঙ্গলমহলের সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর বহুদিনের যোগাযোগ। জঙ্গলমহলকে শুভেন্দু চেনেন হাতের তালুর মতো। ২০০৯ সাল থেকে তিনি নিয়মিত ঝাড়গ্রামের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছেন। মূলত তাঁর হাত ধরেই জঙ্গলমহলে তৃণমূলের উত্থানপর্ব শুরু হয়। সেই কারণে তাঁকে অনেকেই ‘জঙ্গলমহলের কুটুম’ (জঙ্গলমহলের আত্মীয়) নামে সম্বোধন করেন। দলের কেউ কেউ তাঁকে ‘জঙ্গলমহলের মুক্তিসূর্য’ও বিশেষণেও অভিহিত করেন। করোনা-মোকাবিলায় লকডাউন শুরু হতেই জেলার জন্য পাঁচ হাজার প্যাকেট খাদ্যসামগ্রী পাঠিয়েছিলেন শুভেন্দু।

পরে জেলায় বসবাসকারী তিনহাজার চুয়ান্নোটি লোধা-শবর পরিবারের জন্য খাদ্যসামগ্রী পাঠিয়েছেন। এবার পাঠালেন মাস্ক। সূত্রের খবর, জেলায় তাঁর ঘনিষ্ঠজনদের কাছেও অতিরিক্ত মাস্ক পাঠাবেন মন্ত্রী। যাতে আরও বেশি সংখ্যক মানুষের নাক-মুখ ঢাকার ব্যবস্থা করা যায়।

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button