রাজ্য

সংক্রমণের আশঙ্কা শুধু বিজেপি কর্মীদের? পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ গৃহবন্দি মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরির

সংক্রমণের আশঙ্কা শুধু বিজেপি কর্মীদের? পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ গৃহবন্দি মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরির

 

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তুলে রায়গঞ্জের সুদর্শনপুরের বাড়ি থেকে মৌন প্রতিবাদে শামিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরি (Debasree Chaudhuri)। এদিন একাধিকভাবে হেনস্তার শিকার হচ্ছেন বলে জানিয়ে রাজ্যের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন তিনি। অভিযোগের সুরে বলেন কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ পেরিয়ে গেলেও প্রয়োজনেও ঘর থেকে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না তাঁকে।

রবিবার সকালে রাজ্যের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগে সরব হন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরি (Debasree Chaudhuri)। জানান, তাঁর কোয়ান্টাইনের সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পর শনিবার রাতে আবাসনের সামনের একটি ওষুধের দোকানে যাওয়ার ক্ষেত্রেও তাঁকে বাধা দেন কর্তব্যরত পুলিশ আধিকারিকরা।

এখানেই তাঁর প্রশ্ন তবে কি বিজেপি সাংসদ হওয়ার কারণেই জরুরি পরিষেবার ক্ষেত্রেও বাধা দেওয়া হবে তাঁকে? জোর করে বন্দি করে রাখা হবে ঘরে? প্রশ্ন তোলেন তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের ত্রাণ বিলির ক্ষেত্রে কোথাও কোনও সমস্যা নেই, তবে কেন বিজেপির ক্ষেত্রে সব কিছুতেই আপত্তি ? ব্যঙ্গাত্মক সুরে বলেন, তবে কি করোনা শুধু বিজেপি নেতা-কর্মীদেরই আক্রমণ করে!

এদিন করোনা মোকাবিলায় রাজ্যের ভূমিকা নিয়ে কার্যত ক্ষোভ উগরে দেন দেবশ্রী দেবী (Debasree Chaudhuri)। তথ্য গোপনের অভিযোগ তুলে বলেন, কেন এই পরিস্থিতিতেও মানুষের জন্য না ভেবে মৃতের সংখ্যা গোপন করা হচ্ছে? সোশ্যাল মিডিয়ায় সত্য তথ্য প্রকাশ করলে ভয়ংকর পরিণতি হচ্ছে বলেও জানান তিনি। পাশপাশি, রেশন দুর্নীতি নিয়েও মুখ খোলেন মন্ত্রী। এদিন সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে করোনার দাপটে পশ্চিমবঙ্গের এই ভয়াবহ পরিস্থিতির জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দায়ি করেন তিনি। বলেন, কেরল-সহ অন্যান্য রাজ্যগুলি কেন্দ্রের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করেছে। তাই কোনও সমস্যা হয়নি। পরিস্থিতি অনেক সহজে নিয়ন্ত্রণে এসেছে। কিন্তু বাংলায় এখনও রাজনীতি চলছে, যার কারণেই এই পরিণতি বলে দাবি মন্ত্রীর।

সুত্র:সংবাদ প্রতিদিন

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button