উঃ ২৪ পরগনা

লকডাউনের সুযোগে মদের রমরমা কারবার, গ্রেপ্তার বিজেপি যুবনেতা

লকডাউনের সুযোগে মদের রমরমা কারবার, গ্রেপ্তার বিজেপি যুবনেতা

ওয়েব ডেস্ক : লকডাউনের কারণে মদ্যপায়ীদের মধ্যে এখন হাহাকার। আর সেই সুযোগে বাড়িতে বে-আইনি ভাবে মদ মজুত করে চড়া দামে বিক্রি করবার অভিযোগে এক যুবককে গ্রেফতার করল পুলিশ। ধৃতের নাম পল্টু হালদার। বাড়ি বনগাঁ থানার কালুপুর উনাই এলাকায়৷ পুলিশ সূত্রে খবর, বুধবার রাতে বনগাঁ থানার পুলিশ পল্টুর বাড়ি থেকে ১০ বোতল বেআইনি মদ-সহ গ্রেফতার করে তাকে।

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত যুবক এলাকায় বিজেপি’র যুব নেতা বলে পরিচিত। বিজেপির বিভিন্ন সভা-সমিতি এমনকী সংগঠন পরিচালনার কাজে দেখা যেত তাকে। তাকে নিয়মিত দেখা যেত এলাকার নানাবিধ জনসংযোগ করতে। লকডাউনের কারণে এলাকার মদের দোকানগুলি বন্ধ থাকার সুযোগ নিয়ে বাড়িতে মদের বোতল বেআইনি ভাবে মজুত করেছিল সে।

বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন এসে তার সঙ্গে গোপনে যোগাযোগ করত। সংগঠনের নামে লোকজন আসত বলে স্থানীয় মানুষ প্রথম প্রথম গুরুত্ব না দিলেও পরে পুলিশের নজরে আসে বিষয়টি। চড়া দামে সেই মদের বোতলগুলি বিক্রি করছিল পল্টু। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ হানা দিয়ে তাকে মদ-সহ আটক করে৷

স্থানীয় সূত্রে খবর, লকডাউনের পর থেকে বনগাঁ মহকুমা জুড়ে বেড়েছে বেআইনি মদের রমরমা কারবার। মহকুমার গাড়াপোতা, কালুপুর ছয়ঘরিয়া, সুন্দরপুর, গোপালনগর, ঠাকুরনগর, গাইঘাটা-সহ বিভিন্ন এলাকায় দোকানে, বাড়িতে বে-আইনি মদ কিনে মজুত করে রেখেছে বহু মানুষ। সেগুলি চড়া দামে এখন বিক্রি করছে তারা। লকডাউনের পর অভিযান চালিয়ে বাগদা থানা ও বনগাঁ থানার পুলিশ কয়েক জনকে আটক করে প্রচুর বেআইনি মদ উদ্ধার করেছিল। এর পরেও বন্ধ হয়নি বেআইনি মদের কারবার। বনগাঁর এক বাসিন্দার কথায়, মদ্যপায়ীরা হন্যে হয়ে মদ খুঁজে বেড়াচ্ছেন। তাদের কাছে তিন গুণ চার গুণ বেশি দামে মদ বিক্রি করছে ওই অসাধু ব্যক্তিরা। গোপালনগর, বনগাঁ থানা সংলগ্ন এলাকায়ও চলছে চড়া দামে বেআইনি মদের কারবার।

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button