রাজ্য

লকডাউন ভেঙে রাস্তায়, হাওড়া টিকিয়াপাড়ায় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট; ভাঙচুর গাড়ি

লকডাউন ভেঙে রাস্তায়, হাওড়া টিকিয়াপাড়ায় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট; ভাঙচুর গাড়ি

 

হাওড়ার টিকিয়াপাড়ায় লকডাউন কার্যকর করতে গিয়ে আক্রান্ত হল পুলিশবাহিনী। মঙ্গলবার দুপুরে এক দল যুবক পুলিশকর্মীদের ঘিরে ধরে হেনস্থা করতে থাকে। এই ঘটনার জেরে কয়েক জন পুলিশকর্মী আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নামাতে হয় র‌্যাফ। তার পরে ফের অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে টিকিয়াপাড়ার বেলিলিয়াস রোড এলাকা। উত্তেজিত যুবকেরা আশপাশের দোকান এবং পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে থাকে। এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন পুলিশের পদস্থ অফিসারেরা। পুলিশি নিগ্রহের এই ঘটনায় জেলা প্রশাসনের শীর্ষস্তর থেকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

পুলিশের অভিযোগ, এ দিন ওই এলাকায় লকডাউনের নিষেধাজ্ঞা উড়িয়ে বহু মানুষ রাস্তায় ঘুরছিলেন। অনেকে মোটরবাইকেও ইতস্তত ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। এই সময় পুলিশের একটি দল টহল দেওয়ার সময় সেখানে এসে পৌঁছয়। জনতাকে বাড়ি চলে যেতে বলে পুলিশ। এই সময়েই উত্তেজনা ছড়াতে শুরু করে। আচমকাই কিছু লোক পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে ছুড়তে এগোতে শুরু করে। বেশ কয়েক জন পুলিশকে রাস্তায় ফেলে মারতে থাকে। দোকানে হামলাও চালানো হয় বলে অভিযোগ। র‌্যাফ নামানো হলেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমশিম খেতে হয়। এমনকি র‌্যাফের লোকজনকেও মারধর করা হয়। কী কারণে এই ঘটনা ঘটল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন বলেন, ‘অত্যন্ত নিন্দনীয় ঘটনা। পুলিশ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে। করোনা মোকাবিলায় প্রশাসন সাহায্য করছে। এক জন নাগরিক এবং প্রশাসনের কর্মী হিসাবে মনে করি, কড়া হাতে পরিস্থিতি মোকাবিলা করা উচিত। তেমনই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।” বিজেপি নেতা রাহুল সিংহ বলেন, ‘কারা এই ধরনের ঘটনা ঘটাল, তা দ্রুত চিহ্নিত করতে হবে। পুলিশকে কাজ করতে দেওয়া হবে না, এটা হতে পারে না।’

সুত্র:আনন্দবাজার পত্রিকা

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button