রাজ্য

টিকিয়াপাড়ায় পুলিশকে পেটানো সাকিরের বাড়িতে ত্রাণ পৌঁছে দিল মমতা সরকার !

টিকিয়াপাড়ায় পুলিশকে পেটানো সাকিরের বাড়িতে ত্রাণ পৌঁছে দিল মমতা সরকার !

 

টিকিয়াপাড়া: বাড়ির একমাত্র রোজগেরে ছেলে পুলিশকে লাথি মেরে জেলবন্দি জীবন কাটাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে বিপাকে পড়েছেন পরিবারের অন্য সদস্যরা। এই তথ্য জানতে পেরেই টিকিয়াপাড়ায় পুলিশকে মারধরে ধৃত সাকিরের পরিবারের পাশে দাঁড়াল হাওড়া সিটি পুলিশ।

ত্রাণ-সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হল সাকিরের বাড়িতে। লকডাউনের শর্ত ভাঙায় টিকিয়াপাড়ায় পুলিশ অভিযান চালালে এই সাকিরই ভিড় ঠেলে গিয়ে এক পুলিশকর্মীকে পিছন থেকে লাথি মারে।

লকডাউনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে কয়েকদিন আগে পর্যন্ত টিকিয়াপাড়ার বেলিলিয়াস রোড চত্বর ছিল জমজমাট। ফাঁকা রাস্তায় ক্রিকেট খেলা থেকে শুরু করে, রাস্তার পাশের ঘুপচি দোকানে বিরিয়ানি খাওয়া ও সঙ্গে দেদার আড্ডাও চলছিল রমরমিয়ে। করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করেই রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত হাওড়ার জেলার টিকিয়াপাড়ায় অভিযানে যায় পুলিশ।

টহলদারির সময়েই কর্তব্যরত পুলিশকর্মীদের সঙ্গে বচসায় জড়ায় জনতা। লকডাউনের নিয়ম মানতে বলায় উত্তেজনা চরমে ওঠে। পুলিশকে তাড়া করে স্থানীয়দের একটা বড় অংশ। পুলিশকর্মীদের উপর চড়াও হয় এলাকারই প্রায় শ’তিনেক মানুষ।

এরই মধ্যে ভিড় ঠেলে এসে পিছন থেকে এক পুলিশকর্মীকে সপাটে লাথি মারতে দেখা যায় এক যুবককে। গন্ডগোলের মুহূর্তের ফুটেজ খতিয়ে দেখার পরে পুলিশকে লাথি মারার ঘটনায় স্থানীয় যুবক সাকিরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় মোট ১৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে, পুলিশকে লাথি মেরে গ্রেফতার হওয়া সাকিরের পরিবারে সেই ছিল একমাত্র রোজগেরে। সাকির গ্রেফতার হওয়ায় লকডাউনের মাঝে দুশ্চিন্তায় পড়ে যান তার পরিজনেরা। এই খবর জেনেই মানবিক আচরণ সেই পুলিশকর্মীদেরই। হাওড়া সিটি পুলিশের তরফে সাকিরের বাড়িতে প্রয়োজনীয় ত্রাণ-সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়।

হাওড়া সিটি পুলিশের এক কর্তা জানিয়েছেন, কর্তব্যরত পুলিশকর্মীকে মারধরের অভিযোগে সাকিরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আইন অনুযায়ী সাকিরের যা শাস্তি হওয়ার তা হবে। তবে সাকিরের পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভালো নয়। তাঁদের কাছে এই খবর আসতেই গরিব ওই পরিবারটিকে সাহায্য করতে বেশি সময় নেননি তাঁরা। আপাতত পর্যাপ্ত পরিমাণে চাল, ডাল, আলু, আটা তুলে দেওয়া হয়েছে সাকিরের পরিবারের সদস্যদের হাতে।

এদিকে, পুলিশের এই আচরণে উচ্ছ্বসিত টিকিয়াপাড়ায় সাকিরের প্রতিবেশীরা। পুলিশের এই উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন তাঁরা। সংকটের এই মুহূর্তে যেভাবে অসহায় পরিবারটির পাশে দাঁড়াল প্রশাসন, তা প্রশংসাযোগ্য বলে মনে করছেন এলাকাবাসী। দিন-কয়েক আগেই ঠিক এই এলাকাতেই পুলিশের উপর ক্ষোভে ফুঁসছিলেন এলাকাবাসী। তবে পুলিশের এই মানবিক আচরণে সেই ক্ষোভ আর নেই। এখন শুধুই আক্ষেপ।

সুত্র: কলকাতা24×7

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button