রাজ্য

রাজ্যে করোনা সংক্রমণ বাড়ার সঙ্গে জারি রাজনৈতিক তরজা!

রাজ্যে করোনা সংক্রমণ বাড়ার সঙ্গে জারি রাজনৈতিক তরজা!

গোটা দেশের মতো পশ্চিমবঙ্গেও (West Bengal) পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা ভাইরাসে (Coronavirus) আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা। সরকারি পরিসংখ্যান মতে গত দুই দিনে রাজ্যে লাগাতার বেড়েছে সংক্রমণ। শুধু বৃহস্পতিবারই নতুন করে আরও ৯২ জন আক্রান্ত হয়েছেন ওই মারণ রোগে (COVID- 19)। ১১২ জন আক্রান্ত হয়েছেন বুধবার। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে কোভিড- ১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা। এমনিতেই কলকাতার বহু এলাকা কনটেইনমেন্ট জোন হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে। ওই রোগের সংক্রমণ আরও বাড়ায় সেই কনটেইনমেন্ট জোনের সংখ্যাও বেড়েছে। গত দু’দিনে আরও যে ৭ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে তাঁদের মধ্যে ৫ জনই কলকাতার বাসিন্দা ছিলেন বলে জানা গেছে। এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গে যে সময় মানুষ নতুন করে কোভিড- ১৯ এ আক্রান্ত হচ্ছেন তাঁদের মধ্যে অধিকাংশই কলকাতার বাসিন্দা বলে খবর মিলেছে। ফলে তিলোত্তমা এখন আতঙ্কের শহর হয়ে উঠেছে।কলকাতায় বিভিন্ন হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীরাও আক্রান্ত হচ্ছেন করোনায়। তাঁদেরও কোয়ারান্টাইনে থাকতে হচ্ছে।

পূর্ব ভারতের বৃহত্তম ব্যবসায়িক কেন্দ্র হল কলকাতার বড়বাজার। বিভিন্ন রাজ্য থেকে ট্রাকে করে এখানে ব্যবসায়িক দ্রব্য আদানপ্রদান হয়। কিন্তু যেভাবে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তাতে ভিন রাজ্য থেকে শহরে এই ট্রাকগুলি ঢোকা বন্ধের ব্যাপারেও ভাবনাচিন্তা চলছে। জানা যাচ্ছে, শহর কলকাতার বাইরেই এই ট্রাকগুলির গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

এদিকে, করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই লাগাতার চলছে রাজনৈতিক তরজা। পশ্চিমবঙ্গের কোভিড- ১৯ পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ২ দিন আগেই রাজ্য সরকারকে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের সেই চিঠির এখনও কোনও জবাব দেয়নি পশ্চিমবঙ্গ সরকার। তবে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস কেন্দ্রীয় সরকারকে এবিষয়ে তীব্র আক্রমণ করেছে। তাদের প্রশ্ন কেন এই ধরণের চিঠি বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোতে পাঠানো হচ্ছে না? বেছে বেছে বিরোধী শাসিত রাজ্যগুলোকেই করোনা পরিস্থিতি নিয়ে চাপে রাখার কৌশল নিয়েছে কেন্দ্র, অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের।

সুত্র : লেটেস্ট লি

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button