রাজনীতি

বঙ্গবিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি দেবজিৎ কে চক্রান্ত করে সরানো হয়েছে! ক্ষোভ উপরে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব অনুগামীরা !

 

ওয়েস্টবেঙ্গল নিউজ ২৪ ডেস্ক :  দলীয় রাজনীতি চক্রান্তের শিকার বঙ্গ বিজেপির প্রাক্তন যুব মোর্চার সভাপতি দেবজিৎ সরকার। ঠিক এমনটাই মন্তব্য করে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব দলীয় কর্মী থেকে অনুগামীরা। একরকম বঙ্গ বিজেপিতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের প্রকাশ সরাসরি দেখা যায় সোশ্যাল মিডিয়াতে।

বিজেপির ২০২১ এর মুখ কে হতে পারে? দিলীপ বনাম মুকুল। অন্তর্দ্বন্দ্বে জেরবার বঙ্গ বিজেপি। রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ থেকে আসা দিলীপ ঘোষ কামান সামলাচ্ছে বঙ্গ বিজেপির। কিন্তু অন্যদিকে তৃণমূল থেকে আসা প্রাক্তন রেলমন্ত্রী মুকুল রায় এবং তার টিম যেন একতরফা কোণঠাসা হয়ে পড়ছিল।

দিলীপ ঘোষ তাঁর নেতৃত্বে বিজেপিকে গত লোকসভায় আঠারোটি সাংসদ উপহার দেন কেন্দ্রীয় সরকারকে, ঠিক এমনটাই মন্তব্য দিলীপ গোষ্ঠীর। কিন্তু অন্যদিকে এই আঠারোটি এমপির পুরোটাই শ্রেয় যায় মুকুল রায় এর দিকে এমনই মন্তব্য মুকুল গোষ্ঠীর। দিলীপ বনাম মুকুল দুই গোষ্ঠীর হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে বঙ্গ বিজেপি ২০২০ সালে পা দিয়েছে।

এমতাবস্থায় নবনির্বাচিত দিলীপ ঘোষ বিজেপির রাজ্য সভাপতি হয়ে নতুন রাজ্য কমিটি পেশ করতে পারছিলেন না। দু-দুবার কেন্দ্রীয় কমিটির দ্বারা রিজেক্ট হয়ে যাওয়ার পর গতকাল বঙ্গ বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ নতুন রাজ্য কমিটির ঘোষণা করেন।

বেশকিছু পদ থেকে হেভিওয়েট নেতাদের সরানো হয়। আর এই নিয়ে শুরু হয় যোর চর্চা। শুরু হয় চাপানউতোর এবং গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের আঁচ লেগে পড়ে বঙ্গ বিজেপিতে।

রাতারাতি ফেসবুক হোয়াটসঅ্যাপে বয়ে যায় প্রাক্তন যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতির দেবজিৎ সরকারের অনুগামীদের কটাক্ষের ঝড়। এমত অবস্থায় আজ সারাদিনই চলতে থাকে তর্ক-বিতর্ক এবং দলীয় কোন্দল। নবনির্বাচিত বিজেপির যুবমোর্চা রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁ। কে এই সৌমিত্র খাঁ?

সদ্য তৃণমূল থেকে আশা সৌমিত্র খাঁ তৃণমূলের সাংসদ ছিলেন। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে বিজেপির বাঁকুড়া লোকসভা থেকে সৌমিত্র খাঁ সাংসদ হিসেবে জয়লাভ করেন। বর্তমানে বিজেপির ১৮ জন সাংসদের একজন সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

আর তাই ক্ষোভে ফেটে পড়েন পুরনো দলীয় কর্মীরা। একতরফা প্রাক্তন যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি দেবজিৎ সরকারের প্রশংসায় ছেয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়া।এই বিষয়ে দেবজিৎ সরকার নিজ মন্তব্য ফেসবুকে শেয়ার করে জানান

ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার নবনির্বাচিত রাজ্য সভাপতি, সাংসদ শ্রী সৌমিত্র খাঁ কে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন ।

রাজনীতিতে আসা ইস্তক ভারতীয় জনতা পার্টির বিভিন্ন দায়িত্ব সামলেছি | প্রথমে লিগ্যাল সেল , পরে শ্রী অমিতাভ রায়ের নেতৃত্বে যুব মোর্চার সম্পাদক ও শ্রী তুষারকান্তি ঘোষের নেতৃত্বে সহ সভাপতির দায়িত্ব।

শ্রী দিলীপ ঘোষের সুযোগ্য নেতৃত্বে যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতির দায়িত্ব পালনের সাথে সাথে গত লোকসভা নির্বাচনে শ্রীরামপুর আসনে প্রার্থী হিসেবে ভোটের ময়দানে লড়া ।

এই কয়েক বছরে অনেক কিছু শিখেছি অগ্রজপ্রতিম নেতৃত্বের কাছ থেকে , তার চেয়েও বেশি শিখলাম সহকর্মীদের কাছে । এই শিক্ষার মূল্য অপরিসীম | সকলকে জানাই সশ্রদ্ধ প্রণাম ।

আগামী দিনে , জনতার মাঝে আরও বেশি করে সময় দিতে চাই | এই শিক্ষাই আমাকে আগামী দিনের পথ দেখাবে ।

আশাকরি ভারতীয় জনতা যুবমোর্চার নতুন নেতৃত্ব পশ্চিমবঙ্গের মানুষকে ২০২১ সালে মুক্তি দেবে ৷

আরও পড়ুন ::

Back to top button