ঝাড়গ্রাম জেলা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে বেনজির কাণ্ড, পাঁচতলায় ঝুলন্ত রোগীকে উদ্ধার করল দমকল

Advertisement

স্বপ্নীল মজুমদার, ঝাড়গ্রাম: অপারেশনের টেবিল থেকে রোগী পালানোর ঘটনাকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল ঝাড়গ্রাম জেলা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে। সোমবার সকালে হাসপাতালের পাঁচতলায় অপারেশন থিয়েটরে বছর পঞ্চাশের সুদর্শন দণ্ডপাটকে হাতে প্লাস্টার করাতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। কয়েকদিন আগে পড়ে গিয়ে তাঁর বাম হাতের হাড় ভেঙেছিল। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এদিন প্লাস্টার করানোর দিন থাকায় তাঁকে অপারেশন থিয়েটরে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তিনি নার্সকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যান।


তারপরে পাঁচতলার ছাদ থেকে বাথরুমের পাইপ ধরে নামতে থাকেন। এমন কাণ্ড দেখে হাসপাতালে হই হট্টগোল শুরু হয়। হাসপাতালের কর্মীরা কোনও মতে দড়ি দিয়ে সুদর্শনকে পাইপের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় বেঁধে দেন। পরে দমকলের কর্মীরা এসে ওই রোগীকে উদ্ধার করে। পরে সুদর্শনের হাতে প্লাস্টার করা হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, সুদর্শন নিয়মিত মদ্যপান করেন। হাসপাতালে থাকাকালীন তিনি মদ্যপান করার সুযোগ পাননি।

এর ফলে তাঁর মানসিক অস্থিরতা তৈরি করে। মদ্যপায়ীদের এটি এক ধরনের উপসর্গ। সেই কারণেই ওই ব্যক্তি এভাবে পালানোর চেষ্টা করেছিলেন। তবে উপস্থিত সকলেই জানান, যে ভাবে পাঁচতলা থেকে বাথরুমের পাইপ ধরে ওই ব্যক্তি নামর চেষ্টা করছিলেন, তাতে যে কোনও সময় পড়ে গিয়ে তাঁর মৃত্যু হতে পারতো। সুদর্শন দণ্ডপাট নামে ওই রোগীর বাড়ি জামবনির চিল্কিগড়ে।


Recommended For You