রাজ্য

রাজ্যে করোনা সংক্রমণ পেরোল ১ লক্ষের গণ্ডি

রাজ্যে করোনা সংক্রমণ পেরোল ১ লক্ষের গণ্ডি

রাজ্যে করোনা সংক্রমণ পেরিয়ে গেল এক লক্ষের গণ্ডি। গত ১৮ মার্চ রাজ্যে প্রথম করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল। ১১ অগস্ট অর্থাত্‍ ৫ মাস বাদে এসে এই সংখ্যাটা দাঁড়াল এক লক্ষ। এদিন রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২,৯৩১ জন। অর্থাত্‍ এরপরে রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১,০১,৩৯০ জন।

এর মধ্যে প্রায় ৭৪ হাজার মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছেন এবং ২৫,৮৪৬ জন এখনও চিকিত্‍সাধীন রয়েছেন। রাশিয়া করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কারের দিনেই রাজ্য করোনা আক্রান্তের এই নতুন মাইলস্টোন ছুঁল। রাজ্যে বর্তমানে সুস্থতার হার বেশ খানিকটা বেড়ে হয়েছে ৭২.৪০ শতাংশ। প্রতিদিন এই ভাবে সুস্থতার হার বৃদ্ধি একটি অত্যন্ত ইতিবাচক বিষয় বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিন সারা রাজ্যে ২৭ হাজারের বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সবমিলিয়ে ১১ লক্ষ ৬০ হাজার নমুনা পরীক্ষা রাজ্যে হয়েছে। তার মধ্যেই এক লক্ষ করোনা পজিটিভ ফল এসেছে। যার সিংহভাগই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। যদিও প্রধানমন্ত্রী মোদি এদিন বলেছেন, এই রাজ্যে করোনা পরীক্ষা কম হচ্ছে, এই সংখ্যা বাড়াতে হবে। তাহলেই করোনার সঙ্গে লড়াই চালানো সম্ভব হবে। যদিও গত ১৫ দিনে উল্লেখযোগ্যভাবে রাজ্যে করোনা পরীক্ষার সংখ্যা বেড়েছে। দৈনিক ১৬ হাজার থেকে ২৭ হাজারে পৌঁছে গিয়েছে এই পরীক্ষার সংখ্যা।

[ আরও পড়ুন : মৎস্যজীবির জালে লুপ্তপ্রায় বিশালাকৃতি কচ্ছপ ]

জেলাওয়াড়ি হিসেবের যে তালিকা সেদিকে তাকালে দেখা যাচ্ছে কলকাতা স্বাভাবিকভাবেই তালিকার শীর্ষে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এখানে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যথাক্রমে ৭১১ ও ১৮ জন। এই নিয়ে কলকাতায় মোট আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ২৯,১৮৫ ও ৯৮০ জন। দ্বিতীয় স্থানে থাকা উত্তর ২৪ পরগণা জেলায় শেষ এক দিনে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যথাক্রমে ৬৪৩ ও ৯ জন। অর্থাত্‍ মোট আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১,৬৯০ ও ৪৯৯ জন।

এর দুই জেলার পাশাপাশি যে জেলাগুলিতে গত ২৪ ঘণ্টায় অত্যন্ত বেশি সংক্রমণ হয়েছে সেগুলি হল দক্ষিণ ২৪ পরগণা। এখানে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ২২০ ও ৩ জন। হাওড়ায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫৬ জন ও মারা গিয়েছেন ৫ জন। এই জেলায় মোট আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যথাক্রমে ১০,১০০ জন এবং ২৫৮ জন।

এছাড়াও, নদিয়ায় ১২৭ জন, মালদায় ১১৭ জন, পূর্ব মেদিনীপুরে ১১২ জন, হুগলিতে ১১৫ জন, পশ্চিম মেদিনীপুরে ১০০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলেই জানা গিয়েছে। এদিন রাজ্যের ২৩ জেলাতেই সংক্রমণ পাওয়া গিয়েছে।

[ আরও পড়ুন : রাজ্যে করোনা প্রাণ কাড়ল তিন চিকিত্‍সকের, শোকের ছায়া চিকিত্‍সক মহলে ]

এই জেলাগুলি ছাড়া বাকি সব জেলাতেই সংক্রমণের সংখ্যা ২৫ থেকে ৮০-এর মধ্যে। একমাত্র কালিম্পং-এ ৮ ও ঝাড়গ্রামে ১৫ জন করোনা রোগীর খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। মৃতের মধ্যে মুর্শিদাবাদে ৫ জন, হুগলি-দক্ষিণ দিনাজপুর-দক্ষিণ ২৪ পরগণায় ৩ জন করে এবং দার্জিলিং ও দুই মেদিনীপুরে একজন করে রোগী মারা গিয়েছেন বলেই জানিয়েছে রাজ্য সরকার।

সুত্র: এই মুহূর্তে

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button