ঝাড়গ্রাম

পাঁউরুটি কাটার ছুরি দিয়ে কুপিয়ে একমাত্র ছেলেকে খুন, ধৃত বাবা

পাঁউরুটি কাটার ছুরি দিয়ে কুপিয়ে একমাত্র ছেলেকে খুন, ধৃত বাবা

স্বপ্নীল মজুমদার, ঝাড়গ্রাম: রাগের মাথায় ছুরি দিয়ে কুপিয়ে একমাত্র ছেলেকে খুন করে ফেললেন বাবা। ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুরের পড়াশিয়া গ্রামের এমন ঘটনায় স্তম্ভিত স্থানীয় বাসিন্দারা। অভিযুক্ত বাবাকে খুনের দায়ে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ধৃতের নাম ধনঞ্জয় নায়েক।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ধনঞ্জয়ের একমাত্র ছেলে পরেশ নায়েক (২৫) আগে ওড়িশার কটকে একটি বেসরকারি সংস্থায় শ্রমিকের কাজ করতেন। লকডাউনের ফিরে আসেন তিনি। ধনঞ্জয় এলাকায় পাঁউরুটি ফেরি করতেন। পরেশ বিবাহিত। তাঁর একটি এক বছরের মেয়ে রয়েছে।

[ আরও পড়ুন : কাজটি করা একেবারেই সহজ ছিল না: জাহ্নবী ]

শনিবার স্বাধীনতা দিবসে পরেশ ছাগল চরিয়ে বাড়িতে ফেরেন বিকেল তিনটে নাগাদ। বাড়িতে তখনও ভাত রান্না হয়নি। পরেশের স্ত্রী রয়েছেন বাপের বাড়িতে। ফলে, রান্না না হওয়ায় বাড়ি ফিরে রাগারাগি শুরু করেন পরেশ। এই নিয়ে বাবার সঙ্গেও পরেশের বচসাও শুরু হয়। স্থানীয়রা জানান, ধনঞ্জয় মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন।

ছেলের সঙ্গে তাঁর হাতাহাতি শুরু হয়। এরপরেই রাগের মাথায় পাঁউরুটি কাটার ছুরি দিয়ে ধনঞ্জয় পরেশের পিঠে ও পেটে আঘাত করেন বলে অভিযোগ। প্রবল রক্তক্ষরণ হতে থাকে। স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে গোপীবল্লভপুর সুপার স্পেশ্যালিটিতে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে পরেশকে ঝাড়গ্রাম সুপার স্পেশ্যালিটতে রেফার করা হয়।

[ আরও পড়ুন : ২৪ ঘণ্টায় ফের করোনা আক্রান্ত ৩ হাজারের বেশি, সুস্থতার হার ৭৪.৪৮% ]

রাতে ঝাড়গ্রাম সুপার স্পেশ্যালিটিতে মৃত্যু হয় পরেশের। ঘটনার পরেই গা ঢাকা দেন ধনঞ্জয়। রবিবার দুপুরে কমলাশোল এলাকা থেকে ধনঞ্জয়কে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরেশের স্ত্রী বীণপাণির অভিযোগের ভিত্তিতে খুনের ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ।

 

আরও পড়ুন ::

Back to top button