কলকাতা

সহকর্মীর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়েছে স্ত্রী! সন্দেহের বশে যুবককে কোপাল স্বামী

প্রতীকী ছবি

সহকর্মীর সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়েছে স্ত্রী। অনেকদিন ধরেই এই সন্দেহ দানা বেঁধেছিল লক্ষ্মণ মণ্ডলের মনে। সেই অনুমান থেকেই ভয়ংকর কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলল লক্ষ্মণ। যার সাক্ষী থাকল পঞ্চসায়রের (Panchasayar) নেতাজি সুভাষচন্দ্র ক্যানসার হাসপাতাল।

জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরেই পঞ্চসায়রের ওই হাসপাতালে কাজ করেন লক্ষ্মণের স্ত্রী। লক্ষ্ণণের মনে সন্দেহ তৈরি হয়েছিল সহকর্মী রঞ্জিত কোনারের সঙ্গে প্রণয়ের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছে তার স্ত্রী। এই নিয়ে একাধিকবার রঞ্জিতের সঙ্গে কথা বলে লক্ষ্মণ। বচসাও হয় দু’জনের।

[ আরও পড়ুন : WhatsApp করলেই বাড়ি এসে করোনা টেস্ট করবে পুরসভা ]

এই পরিস্থিতিতে শনিবার সন্ধেয় রঞ্জিতের সঙ্গে কথা বলতে হাসপাতালে যায় লক্ষ্মণ। ফের কথাকাটি শুরু হয় তাঁদের। সূত্রের খবর, লক্ষ্মণের কথার খুব একটা গুরুত্ব না গিয়ে সুপারের ঘরে ঢুকে যায় রঞ্জিত। পিছু নেয় অভিযুক্ত।

কয়েক মুহূর্তের মধ্যেই সুপারের ঘর থেকে আর্তনাদ শুনতে পান হাসপাতালের কর্মীরা। তড়িঘড়ি তাঁরা ছুটে গিয়ে দেখেন রক্তমাখা খুর হাতে সুপারের ঘর থেকে বের হচ্ছে লক্ষ্মণ। এরপরই তাঁরা সুপারের ঘরে ঢুকে দেখে সেখানে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে রঞ্জিত। সঙ্গে সঙ্গে আহতকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। জানা গিয়েছে, ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসার পরই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। স্বামীর এহেন আচরণে বাকরুদ্ধ অভিযুক্তের স্ত্রী।

 

 

সুত্র: সংবাদ প্রতিদিন

আরও পড়ুন ::

Back to top button