জাতীয়

মহারাষ্ট্রে বহুতল ভেঙে মৃত্যু বেড়ে দুই, খোঁজ নেই কমপক্ষে ১৮ জনের

বিপদ যেন পিছু ছাড়ছে না মহারাষ্ট্রের। একদিক তো করোনা সংক্রমণে নাজেহাল এই রাজ্য। গোদের উপর বিষফোঁড়া হয়েছে প্রবল বৃষ্টি। এমন পরিস্থিতিতে সোমবার সন্ধেয় হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে পাঁচতলা একটি বাড়ি।

যাঁর ধ্বংসস্তূপের তলায় অনেকের আটকে থাকার আশঙ্কা করা হচ্ছিল। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ধ্বংস্তূপ থেকে দুজনের দেহ উদ্ধার হয়েছে। আরও ১৮ জনের আটকে থাকার আশঙ্কা করা হচ্ছে। জোরকদমে চলছে উদ্ধারকার্য। কিন্তু এখনও সম্পূর্ণ ধ্বংসস্তূপ সরানো সম্ভব হয়নি।

সোমবার ঘটনাটি ঘটে মহারাষ্ট্রের রায়গড় জেলার কাজলপুরা এলাকায়। সন্ধের সময় বিরাট শব্দ শুনতে পান স্থানীয়রা। বাড়ি থেকে বেরিয়ে দেখেন পুরনো পাঁচতলা বিল্ডিংয়ের তিনটি তলাই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। সেই সময় অনেকেই বিল্ডিংয়ের ভিতর ছিলেন। ফলে ২০০ জনেরও বেশি মানুষ ভিতরে আটকে পড়েছিলেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছিল।

[ আরও পড়ুন : আলোচনায় কাজ না হলে সামরিক পথ খোলা, হুঁশিয়ারি বিপিন রাওয়াতের ]

গতকাল সন্ধেয় প্রথমে স্থানীয়রা, পরে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দল (NDRF) উদ্ধারকাজ শুরু করে। রাতভর ধ্বংসাবশেষ সরিয়ে চাপা পড়ে থাকা মানুষজনকে বের করে আনা হচ্ছে। উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে এনডিআরএফের তিনটি দল। কংক্রিটের চাঙড় সরিয়ে ৬০ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

এনডিআরএফ জানিয়েছে, গতকাল সন্ধে থেকে উদ্ধারকাজ শুরু হয়েছে। বৃষ্টির জন্য মাটি, পাথর সরিয়ে উদ্ধাবৃষ্টির জন্য মাটি, পাথর সরিয়ে উদ্ধারকাজে কিছু দেরি হচ্ছে। এখনও অন্তত ২৫ জন মাটি চাপা পড়ে আছেন বলে মনে করা হচ্ছে।

 

 

সুত্র : সংবাদ প্রতিদিন

 

আরও পড়ুন ::

Back to top button