আন্তর্জাতিক

করোনা বিধি ভেঙে পার্টি, পুলিশের ধাওয়ায় পদদলনে নিহত ১৩

করোনাভাইরাস মহামারি বিস্তারের লাগাম টানতে আরোপিত বিধি-নিষেধ উপেক্ষা করে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ পেরুতে নৈশ ক্লাবে পার্টি করার সময় পুলিশের ধাওয়ায় পদদলিত হয়ে অন্তত ১৩ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

শনিবার দেশটির কর্মকর্তারা বলেছেন, রাজধানী লিমার কাছে একটি নৈশ ক্লাবে পার্টির খবর পাওয়ার পর পুলিশ অভিযান শুরু করে। এ সময় সেখানে অংশ নেয়া লোকজন পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পদদলনের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় পুলিশ এবং সরকারি কর্মকর্তারা বলেছেন, শনিবার রাতে লিমার থমাস রেস্টোবার ক্লাবে প্রায় ১২০ জন পার্টিতে অংশ নিয়েছিলেন। ক্লাবের দ্বিতীয় তলার এই পার্টি ভেঙে দিতে পুলিশ অভিযান শুরু করলে লোকজন পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এতে পদদলিত হয়ে ১৩ জনের প্রাণহানি ও তিন পুলিশসহ অন্তত ছয়জন আহত হয়েছেন।

পেরুর রাজধানীর লোস ওলিভোস জেলার বাসিন্দারা ওই নৈশ ক্লাবের পার্টির ব্যাপারে পুলিশকে খবর দেন। স্থানীয় রেডিও স্টেশন আরপিপিকে পুলিশ কর্মকর্তা ওরল্যান্ডো ভেলাস্কো বলেন, এই পরিস্থিতিতে লোকজন বাইরে বের হওয়ার জন্য নিজেদের মধ্যে মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে। কে আগে বের হবেন, সেটি নিয়ে প্রত্যেকেই পরস্পরের সঙ্গে দ্বন্দ্বে লিপ্ত হন।

আরও পড়ুন : বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলন : ট্রাম্প সমর্থকদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ১

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আয়োজকরা সেখানকার একটি মাত্র দরজা দিয়ে লোকজনকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু দরজা থেকে কিছু দূরত্বে সিঁড়ির অবস্থান হওয়ায় অনেকে আটকা পড়েন।

পার্টিতে অংশ নেয়া অন্তত ২৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে গত মার্চ মাসে দেশটিতে নাইটক্লাব ও বার বন্ধ করে দেয়া হয়। এছাড়া পারিবারিক অনুষ্ঠানেও জনসমাগম ১২ আগস্ট পর্যন্ত নিষিদ্ধ করা হয়।

ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্সের পরিসংখ্যান বলছে, লাতিন আমেরিকায় করোনায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংক্রমণের হারের রেকর্ড হয়েছে পেরুতে। দেশটিতে এখনও প্রতি রোববার কারফিউ কার্যকর করা হয়। পেরুতে এখন পর্যন্ত ৫ লাখ ৮৫ হাজার ২৩৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। দেশটিতে এই ভাইরাসে মারা গেছেন অন্তত ২৭ হাজার ৪৫৩ জন।

আরও পড়ুন ::

Back to top button