বিনোদন

সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে রিয়ার পুলিশি অভিযোগ

সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে রিয়ার পুলিশি অভিযোগ
রিয়া চক্রবর্তী

সুশান্ত মৃত্যুর পর থেকে নানা অভিযোগে অভিযুক্ত হচ্ছেন তার প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তী। তাকে ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা ট্রল হচ্ছে। যা নিয়ে যারপনায় বিরক্ত তিনি। এছাড়াও প্রতিনিয়ত জেরার মুখেও পড়ছেন।

সোমবার টানা ৯ ঘণ্টা ম্যারাথন জেরার পর ডিআরডিও গেস্ট হাউজ থেকে হন্তদন্ত হয়ে বের হলেন রিয়া। সঙ্গে ছিলেন ভাই সৌহিক চক্রবর্তী। এদিন ভাইবোন দু’জনকেই সিবিআই গোয়েন্দাদের কড়া জেরার মুখে পড়তে হয় বলে জানা গিয়েছে।

উপরন্তু দিনের শেষে নিজের বাড়িতেই কিনা নির্ঝঞ্ঝাটভাবে ঢুকতে পারলেন না অভিনেত্রী। গেটের কাছে উপচে পড়া সাংবাদিকদের ভিড় দেখেই বিরক্ত হন রিয়া। এরপর বিন্দুমাত্র দেরী না করেই সোজা চলে যান সান্তাক্রুজ থানায়। সেখানেই সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন অভিনেত্রী।

প্রসঙ্গত সুশান্ত মৃত্যুর পর থেকে আইনের চোখে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার আগেই দেশবাসীর সিংহভাগের নজরে রিয়া চক্রবর্তী ‘মোস্ট ওয়ান্টেড’! কাজেই তার প্রত্যেকটি মুহূর্তের খবর পাওয়ার জন্য যে তার দিকে ক্যামেরার লেন্সের তাক থাকবেই, তা বলাই বাহুল্য।

আরও পড়ুন : সুশান্তের কাছে সন্তান চাইতেন রিয়া!

গত শুক্রবার অভিনেত্রীর বাড়ির সামনে সংবাদমাধ্যমের ভিড় এবং উৎকণ্ঠা, কৌতূহলী ব্যক্তিদের জমায়েত থাকায় বাড়ির বাইরে পা রাখতে পারেননি তিনি! অবশেষে সিবিআইয়ের দপ্তরে পৌঁছানোর জন্য তাকে মুম্বাই পুলিশের দ্বারস্থ হতে হয়।

বাড়ি থেকে বেরনোর জন্য পুলিশ প্রশাসনের সাহায্য প্রার্থনা করেছিলেন তিনি। তার আবেদনের ভিত্তিতেই শেষমেশ মুম্বাই পুলিশ বাড়ি থেকে রিয়া চক্রবর্তীকে এসকোর্ট করে নিয়ে যায় সান্তাক্রুজের ডিআরডিও গেস্ট হাউজে, যেখানে তদন্তের জন্য আশ্রয় নিয়েছেন সিবিআই গোয়েন্দা আধিকারিকরা। এক প্রকার হুলুস্থূল কাণ্ডই বটে!

রিয়ার অভিযোগ, স্বাভাবিক জীবন বিপর্যস্ত করে দিচ্ছেন সাংবাদিকরা। আমার ব্যাপারে অনেক ভুয়ো খবর রটানো হচ্ছে। আর সেসবের ভিত্তিতেই সোমবার ফের পুলিশের দ্বারস্থ হন রিয়া। এই নিয়ে দ্বিতীয়বারের জন্য সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযোগ দায়ের করলেন অভিনেত্রী।

বর্তমানে কীরকম পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে রিয়াকে? বাড়ির সামনে সাংবাদিকদের ভিড়ে তার বাবার একটি ভিডিও শেয়ার করে অভিনেত্রী সেই অভিজ্ঞতার কথা প্রকাশ্যে এনেছেন।

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button