রাজনীতি

বাবা বড়সড় পদ পেতেই, ‘বদলের আগেই বদলার হুঙ্কার শুভ্রাংশুর

শনিবারই বিজেপিতে বড়সড় পদ পেয়েছেন মুকুল রায়। সর্বভারতীয় বিজেপির সহ সভাপতি করা হয়ছে মুকুল রায়কে। দলে বাবার গুরুত্ব বাড়তেই শাসকদল তৃণমূলকে একহাত নিলেন পুত্র-শুভ্রাংশু। ‘বদলের আগেই বদলা নেব’, শাসকদল তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশু রায়ের।

অবশেষে বিজেপিতে বড়সড় পদ পেয়েছেন মুকুল রায়। দলের সর্বভারতীয় সহ সভাপতি করা হয়েছে বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদকে। মুকুল রায় ছাড়াও বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি পদে নিযুক্ত হলেন ছত্তীসগড়ের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রমন সিং, রাজস্থানের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া, ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা রঘুবর দাস-সহ মোট ১২ জন।

জল্পনাটা চলছিল বহুদিন ধরেই। এমনকী মুকুল রায় নিজেও ফের জাতীয়স্তরের রাজনীতিতে নিজের জায়গা ফিরে পেতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছিলেন। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেও রাজ্য বিজেপির সঙ্গে মুকুলের দূরত্ব বাড়ছিল।

আরও পড়ুুন:কেন্দ্রীয় সম্পাদকের পদ হারিয়ে মুকুলের প্রতি ক্ষুব্ধ রাহুল

মুকুল রায় নিজে মুখে একথা স্বীকার না করলেও রাজনৈতিক মহলে কান পাতলে একথা প্রায়ই শোনা যাচ্ছিল। দুঁদে এই রাজনীতিবিদ বরাবরই মোদী-শাহদের আস্থাভাজন। অমিত শাহ নিজে পছন্দ করেন মুকুল রায়কে।

এদিকে, দলে মুকুলের গুরুত্ব বাড়তেই দুরন্ত মেজাজ ছেলে শুভ্রাংশু রায়ের। ‘বদলের আগেই বদলা হবে। বদল হয়ে গেলে তো রাজধর্ম পালন করতে হয়। তখন আর বদলা নেওয়া যায় না।”

অন্যদিকে, এতদিনে ‘পুরস্কার’ মেলায় স্বভাবতই চনমনে মুকুল রায় নিজেও। বীজপুরের বাড়িতে বসেই বললেন, ”এবার চ্যালেঞ্জটা আরও বেড়ে গেল। দল গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দিয়েছে। নিষ্ঠার সঙ্গে সেই দায়িত্ব পালন করব। সবার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে চাই।”

সুত্র:কলকাতা24×7

আরও পড়ুন ::

Back to top button