ঝাড়গ্রাম

জেলা সহ-সভাপতির পদে উৎপল দাস মহাপাত্র, সংগঠনে সক্রিয় বিজেপি কর্মীরা

স্বপ্নীল মজুমদার, ঝাড়গ্রাম: ‘নিষ্ক্রিয়’ নেতা পদে ফিরতেই নয়াগ্রামে নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করে দিয়েছেন বিজেপি কর্মীরা। সদ্য বিজেপি-র জেলা সহ-সভাপতি পদ পেয়ে উৎপল দাস মহাপাত্রও এলাকায় কৃষি বিলের সমর্থনে প্রচার শুরু করেছেন। তৃণমূলকে আসন্ন বিধানসভায় সুর্বরেখায় ভাসানোর হুঙ্কার দিচ্ছেন তিনি।

এলাকার বিজেপি কর্মীরা বলছেন, পারলে উৎপলই পারবেন। স্বচ্ছ ভাবমূতির পেশায় শিক্ষক উৎপল এলাকায় জনপ্রিয়। বিপদে আপদে মানুষের পাশে থাকেন। মার্জিত কথাবার্তায় সুশিক্ষার ছাপ সুস্পষ্ট। ২০১৬-২০১৯ পর্যন্ত বিজেপি-র নয়াগ্রাম মণ্ডল সভাপতি ছিলেন উৎপল। তিন বছরের মেয়াদ শেষে চলতি বছরের গোড়ায় উৎপলকে মণ্ডল সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

দলীয় পদ থেকে উৎপলকে সরানোর বিষয়টি ভাল চোখে নেননি বিজেপি-র নিচু তলার কর্মীরা। তাই অনেকেই নিষ্ক্রিয় হয়ে গিয়েছিলেন। বিধানসভা ভোটের আগে সসম্মানে দলীয় পদ দিয়ে উৎপলের গুরুত্ব বাড়াল গেরুয়া শিবির।

আরও পড়ুুন: সংসদে নজিরবিহীন নাটকীয়তার মাঝে কৃষি বিলে রাষ্ট্রপতির সই

বিজেপি-র নিচুতলার কিছু কর্মীর অভিযোগ, দলের জেলা নেতৃত্বের একাংশের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় উৎপলকে দ্বিতীয় বারের জন্য মণ্ডল সভাপতির পদে পুনর্বহাল করা হয়নি।

উৎপলও মাস ছ’য়েক দলের কর্মসূচি থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন। তবে ব্যক্তিগত ভাবে লকডাউন পর্বে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে সেবামূলক কাজকর্ম করতে থাকেন। সূত্রের খবর, কিছুদিন আগে বিজেপি-র রাজ্য নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় নয়াগ্রামে উৎপলের বাড়িতে গিয়ে দেখা করেছিলেন।

তারপরই সম্প্রতি দলের জেলা কার্যকারিণীসভায় ডাক পেয়েছিলেন উৎপল। ওইদিনই দলের রাজ্য সহ-সভাপতি প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে উৎপলকে ঝাড়গ্রাম জেলা সহ-সভাপতি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন ::

Back to top button