আন্তর্জাতিক

আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার যুদ্ধ নিয়ে বিবাদে তুরুস্ক ও ফ্রান্স

বিতর্কিত অঞ্চল নিয়ে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে শুরু হওয়া লড়াই বুধবার চার দিনে গড়িয়েছে। প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে লড়াই থামার কোনো ইঙ্গিত না মেলেনি। তবে এই দুই দেশকে নিয়ে বিবাদে জড়িয়ে পড়েছে ন্যাটো জোটের দুই সদস্য তুরস্ক ও ফ্রান্স।

আর্মেনিয়ার সঙ্গে প্রতিবেশী আজারবাইজানের বিতর্কিত নাগরনো-কারাবাখ এলাকা নিয়ে চলা লড়াইয়ে চারদিনে বেসামরিক নাগরিকসহ প্রায় ১০০ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরো শতাধিক। ঘনিষ্ঠ মিত্র হওয়ায় এই যুদ্ধে আজারবাইজানকে সমর্থন দিচ্ছে তুরস্ক। মঙ্গলবার আর্মেনিয়া দাবি করেছে তুরস্ক তাদের একটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করেছে।

আরও পড়ুুন:  শপথ নিয়েছেন কুয়েতের নতুন আমির

তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত ক্যাভুসোগলুর কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, আজারবাইজান অনুরোধ করলে আঙ্কারা সহায়তা করবে কিনা।

তিনি সাফ বলেছেন, ‘যা যা প্রয়োজন তুরস্ক তার সবই করবে।’

আজারাবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ তুরস্কের এই সমর্থনের জন্য ধন্যাবাদ জানিয়েছেন। এই মুহূর্তে তার দেশের সামরিক সহযোগিতার প্রয়োজন নেই বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

আর্মেনীয়দের পূর্বপুরুষদের অনেকেই ফ্রান্সের নাগরিক ছিলেন। এ কারণে আর্মেনিয়ার প্রতি ফ্রান্স বরাবরই সহানুভূতিশীল।

আরও পড়ুুন: গাঁজা সেবন করেছিলেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন বুধবার লাটভিয়া সফরকালে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, তুরস্কের ‘যুদ্ধবার্তায়’ ফ্রান্স অত্যন্ত উদ্বিগ্ন। তাদের এই বার্তা ‘নাগরোনো-কারাবাখকে আজারবাইজানের পুনরায় বিজয়ের পথের বাধাকে অপসারণের চেষ্টা করছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা এটা মেনে নেব না।’

আরও পড়ুন ::

Back to top button