রাজ্য

অল্পের জন্যে রক্ষা পেল রেলের স্টাফ ট্রেন

রানা বৈদ্য

অল্পের জন্যে রক্ষা পেল রেলের স্টাফ ট্রেন
নিজস্ব চিত্র

আমোদপুর: অল্পের জন্যে রক্ষা পেল রেলের স্টাফ ট্রেন।দূর্ঘনাস্থলে দাঁড়িয়ে পড়ে ওই স্টাফ ট্রেনটি। গাড়ি থেকে নেমে যান ওই স্টাফ ট্রেনে থাকা যাত্রীরা।এদিন আমোদপুরের কুসুমযাত্রা নতুনপল্লী গ্রামের কাছে রেল লাইনে ফাটল দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দা প্রদীপ সরকার।

এর পর তিনি স্থানীয় রেলগেটে খবর দেন।প্রদীপ বাবু বলেন, আজ সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ বিশেষ কাজের জন্য বাড়ি থেকে বের হয়েছিলাম।কিন্তু রেললাইন দিকে তাকাতেই দেখি যে একটা মালগাড়ি যাচ্ছে এবং রেললাইনটা অনান্য দিনের চেয়ে একটু হলেও লাফালাফি করছে।

মালগাড়ি পেরিয়ে যাওয়ার পর সেখানে গিয়ে দেখি যে, ওইখানে প্রায় চারইঞ্চি রেলে ফাটল দেখা যায়।আমি সঙ্গে সঙ্গে রেলগেটে খবর দিই।এবং ফিরে আসি ফাটলের জায়গায়। তখন দেখি একটা ট্রেন আসছে।

সে সময় আমি স্থানীয় জীবন দাস,ধ্রুব দাস,মিহির পটুয়াকে খবর দিই। তারা আসতেই আমি গামছা নিয়ে রেল লাইন দিয়ে ছুটে যায়।যাতে দূর্ঘটনাস্থলের কাছে ওই ট্রেনটি চলে না আসে।

আরও পড়ুন: আচমকা দুর্বল ক্যানেলের পাড় ভেঙ্গে জলে প্লাবিত এলাকা

শেষমেশ দূর্ঘনাস্থলের কাছে এসে থামে ওই স্টাফ ট্রেনটি।আমরা ভিষণ চিন্তায় ছিলাম যে ভগবান না করে কোনো দূর্ঘটনা ঘটে যায়।

ট্রেনটি দাঁড়িয়ে পড়ার পর আমরা হাঁফ ছেড়ে বাঁচলাম।ওই ট্রেনে থাকা সজল চন্দ্র বলেন,এই ট্রেনটি রামপুরহাট থেকে স্টাফদের নিয়ে বর্ধমানের দিকে যাচ্ছিল।

আমোদপুর ষ্টেশন পার হয়ে কিছুটা যাওয়ার পরেই হঠাৎ দেখি কিছু মানুষজন রেল লাইন দিয়ে ছুটে ট্রেনটিকে দাঁড় করানোর চেষ্টা করছেন।

ট্রেনটি দাঁড়ানোর বুঝতে পারি যে সামনে বেশ কিছুটা রেল লাইন ফেটে গিয়েছে।ওই মানুষগুলো আজ একটা বড় দূর্ঘটনা থেকে আমাদের বাঁচিয়ে দিয়েছেন।

এর জন্য ওই মানুষগুলোকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।ধন্যবাদ জানাই স্টাফ ট্রেনের চালককে।উনি নিজের দক্ষতায় কোনো দূর্ঘটনা ঘটার আগেই ট্রেনটিকে দাঁড় করিয়ে দেন তিনি।

আরও পড়ুন ::

Back to top button