টলিউড

ঋতুপর্ণার ‘আবেদন’ নিয়ে খোলাখুলি বললেন প্রসেনজিৎ

সুপারস্টার প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত

বাংলার আবেদনময়ী অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। অভিনয়গুণে পেয়েছেন বেশ জনপ্রিয়তা। দুই বাংলাতেই রয়েছে তার পরিচিতি। অভিনয় ক্যারিয়ারে সুপারস্টার প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে একাধিক ব্যবসা সফল সিনেমায় অভিনয় করেছেন ঋতু। শুধু পর্দাতেই নয়, বাস্তব জীবনেও বেশ ভালো বন্ধু তারা।

একের পর এক হিট সিনেমা উপহার দিয়েও অজানা এক কারণে দূরত্ব তৈরি হয়েছিল প্রসেনজিৎ আর ঋতুপর্ণার মধ্যে। যেটা বাংলা সিনেমাপ্রেমীরা অনেকেই জানেন। দূরত্ব কাটিয়ে যখন ‘প্রাক্তন’ সিনেমায় দুজন একসঙ্গে পর্দায় এলেন তখন গোটা হলে হুল্লোড় পড়ে গিয়েছিল। বক্স অফিসেও হিট করেছিল সিনেমাটি। তারপর সে দূরত্ব অনেকটাই ইতিহাস।

প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা জুটিকে নিয়ে এখনো দর্শকের বেশ আগ্রহ। ‘ঋতু ইজ অ্যা গ্রেট লার্নার’- প্রথম দেখায় এমনটাই মনে হয়েছিল প্রসেনজিতের। আলোচিত এ অভিনেত্রী প্রসঙ্গে নিজের আত্মজীবনীতে প্রসেনজিৎ লিখেন, ‘বাঙালি নায়িকাদের চিরাচরিত সৌন্দর্যের প্রোটোটাইপে ঋতু পড়ে না।

আরও পড়ুন: রোমান্সে ভরপুর ‘কৃষ্ণকলি’র নীল-তৃণা, ভাইরাল ভিডিও

ওর হাইট, ওর প্রেসেন্স, ওর সেক্স অ্যাপিল। সবটাই অন্যরকম। ঋতু স্বল্পসুন্দরী। একই সঙ্গে অঘোষিত সেক্স সিম্বল। ঋতু থাকা মানে ছবিতে বৃষ্টির সিন থাকবেই।’

১৯৯২ সালে সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছিলেন ঋতুপর্ণা। ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’ সুপারডুপার হিট হওয়ার পর তাকে আর ধরে রাখা যায়নি। সমান তালে কাজ করে যাচ্ছেন এখনো। প্রসেনজিতের মতে, ঋতু বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির লংগেস্ট সার্ভাইভিং হিরোইন।

অভিনয় ক্যারিয়ারে ৫২টি সিনেমায় স্ক্রীন শেয়ার করেছিলেন প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা। তাদের সিনেমাগুলোর মধ্যে ‘নাগপঞ্চমী’, ‘অবুঝ মন’,‘মনের মানুষ’,‘শুধু একবার বলো’, ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ’, ‘দৃষ্টিকোণ’, ‘প্রাক্তন’ উল্লেখযোগ্য।

আরও পড়ুন ::

Back to top button