রাজনীতিরাজ্য

৭৫ লক্ষ বেকারকে চাকরির প্রতিশ্রুতি, বিজেপির

বিধানসভা নির্বাচনের আগে বেকারদের জন্য বড়সড় পদক্ষেপ করল বঙ্গ বিজেপি। কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কার্ড প্রকাশ করল তারা। দলের দুই শীর্ষ নেতা মুকুল রায় ও সৌমিত্র খানের হাত ধরে এই কার্ড প্রকাশিত হল রবিবার।

প্রথমে ‘দুয়ারে সরকার’, তারপর ‘বঙ্গধ্বনি যাত্রা’। একুশে ভোটের কথা মাথায় রেখে যখন একে এক কর্মসূচি নিচ্ছে তৃণমূল, তখন চুপ করে বসে নেই বিজেপিও। কলকাতায় দলের সদর দফতর থেকে শুরু হল ‘চাকরির প্রতিশ্রুতি কার্ড’ বিলি কর্মসূচি শুরু করল তারা।

এদিন যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খান জানান, ৭৮ হাজার বুথ এলাকায় প্রতিশ্রুতি কার্ড নিয়ে যাবেন বিজেপি কর্মীরা। প্রতিশ্রুতি কার্ড দিয়ে ৭৫ লক্ষ বেকার যুবকদের নাম নথিভুক্ত করা হবে।

সৌমিত্র খান বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেকার যুবকদের অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু তা পূরণ করতে পারেননি। তিনি এখন দাবি করছেন ২ কোটি বেকার যুবককে চাকরি দিয়েছেন। তা যে সর্বৈব মিথ্যা, তা বোঝানোর জন্যই আমরা প্রতিশ্রুতি কার্ড নিয়ে ঘরে ঘরে যাব।

কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, এভাবে কী কোনও রাজনৈতিক দল চাকরি দিতে পারে? কারণ সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে আবেদনকারীদের নাম নথিভুক্ত করার একটা জায়গা আছে, বিভিন্ন কমিশন রয়েছে। তার মাধ্যমেই নিয়োগ হয়।

আরও পড়ুন: রাজ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন দাবি কৈলাশ বিজয়বর্গীয়

কিন্তু একটা রাজনৈতিক দল যদি এভাবে জন বেছে বেছে প্রতিশ্রুতি দেয়, তা কি পালন করা সম্ভব।এই প্রেক্ষিতেই মুকুল রায় বলেন, আমরা তো চাকরি দেব প্রতিশ্রুতি দিতে পারি না। আমরা পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি যুব সমাজকে। তাঁদের বেকারত্বের সঙ্গে সমব্যাথী আমরা। সরকারে এলে আমরা বেকার যুবকদের অগ্রাধিকার দেব।

বাংলার বেকারত্ব সমস্যা নিয়ে এদিন মমতা সরকারকে কাঠগড়ায় তোলেন মুকুল রায়। বলেন, ‘এখন বাংলায় শিল্প সম্মেলন হয়। কিন্তু বিনিয়োগ হয় না। সিঙ্গুরেও কিছু হয়নি। টাটাকে তাড়ানো ছিল সব থেকে বড় ভুল।’রাজ্যে ৯টি বাণিজ্য মেলা করেছেন।

এই মেলা করতে কত খরচ হয়েছে? বিনিময়ে কত টাকার বিনিময় এসেছে? তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে শ্বেতপত্র প্রকাশের দাবি জানালেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

ভয় কাটানোর দাওয়াই হতে পারে দুই বাংলার কোভিড জয়ীদের কথা।

 

সূত্র : কলকাতা ২৪*৭

আরও পড়ুন ::

Back to top button