ওপার বাংলা

নার্সকে কলাক্ষেতে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১


নার্সকে কলাক্ষেতে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১ - West Bengal News 24


শিবপুরে এক নার্সকে (২০) গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার আশুতিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার মনির ভূইয়া নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এর আগে গত বুধবার রাতে দুজনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা দুজনকে আসামি করে শিবপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছে ধর্ষণের শিকার তরুণীর বাবা। অভিযুক্তরা হলেন- শিবপুরের মজলিশপুর এলাকার তারা ভূইয়ার ছেলে হারুন ভূইয়া (২০), একই এলাকার মতিন কমান্ডারের ছেলে মনির ভূইয়া (২০) সহ অজ্ঞানামা দুজন।

ভিকটিমের পরিবার ও পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মামলার বাদির দুই মেয়ে। বড় মেয়ে নরসিংদীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে নার্সের চাকরি করে ও ছোট মেয়ে বাড়িতে থাকে। গত আট মাস আগে বড় মেয়ের বিয়ে হয়। চাকুরির সুবাধে বড় মেয়ে নরসিংদীতেই থাকে। গত মঙ্গলবার সকালে বাদিও ছোট মেয়ে পার্শ্ববর্তী গ্রামে তাঁর এক নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে হয়।

আরও পড়ুন : টুম্পা সোনা গানে স্বস্তিকার নাচের ভিডিও ভাইরাল

ওই দিন সন্ধ্যায় অভিযুক্ত হারুন ভূইয়া তাঁর ব্যবহৃত মুঠোফোন থেকে নার্সকে ফোন করে জানায় তার ছোট বোনকে নিয়ে একটু ঝামেলা হয়েছে সে যেন দ্রুত আসে। ওই সময় ছোট বোনের নম্বরে ফোন করলেও যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হয়ে রাতেই মজলিশপুরের উদ্যেশ্য রওনা হয়ে রাত পৌনে ১০টায় মজলিশপুর পৌঁছে। ওই সময় অপর অভিযুক্ত মনির ভূইয়া ছোট বোনের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে একটি কলাক্ষেতে নিয়ে যায়। সেখানে যাওয়ার পর অভিযুক্ত হারুন, মনির ও অজ্ঞাতনামা দুজন গণধর্ষণ করে। পরে অজ্ঞাত দুজন চলে গেলে অভিযুক্ত হারুন ও মনির ওই নার্সের আত্মীয়কে ফোনে জানায় ওই নার্স অসুস্থ অবস্থায় কলাক্ষেতে পড়ে আছে। খবর পেয়ে তাঁর ওই আত্মীয় ও ছোট বোন দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার বাড়িতে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার ওই নার্সের বাবা বাদি হয়ে বুধবার রাতে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত মনির ভূইয়াকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা আজিজুর রহমান বলেন, মামলা দায়েরের পর মনির ভূইয়া নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধর্ষণের ঘটনায় তাঁর সম্পৃক্তার কথা স্বীকার করেছে। বাকি অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে।

সুত্র : বিডি২৪লাইভ



Related Articles

Back to top button