ঝাড়গ্রাম

ঝাড়গ্রামে শিবসেনার প্রার্থী মধুসূদন সিংহ

স্বপ্নীল মজুমদার



ঝাড়গ্রাম: কেন্দ্রের বিজেপি সরকার একের পর এক জনবিরোধী নীতি নিয়ে চলেছে। মানুষের ভালো ওরা চায়না। অন্যদিকে রাজ্যের তৃণমূল সরকারও প্রকৃত উন্নয়নে ব্যর্থ। বিজেপি আর তৃণমূল দু’দলই কাটমানি ৱায়।

এই পরিস্থিতিতে জঙ্গলমহলের মানুষের প্রকৃত উন্নয়ন ও সরকারি ও বেসরকারি কাজে ভূমিপুত্রদের ৮০ শতাংশ সরক্ষণের দাবি তুলল শিবসেনা। শুক্রবার ঝাড়গ্রাম শহরের অফিসার্স ক্লাব মাঠে শিবসেনার জেলা কমিটির পক্ষে এক সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়। এদিন দলের জেলা ও রাজ্য নেতারা কড়া ভাষায় একই সঙ্গে তৃণমূল ও বিজেপির সমালোচনা করেন।

তাঁরা বলেন জঙ্গলমহলের আদিবাসী মুলবাসীদের প্রকৃত উন্নয়ন হয়নি। তাঁরা অভিযোগ করেন বিজেপি হিন্দুত্ববাদী দল। শিবসেনাও হিন্দুত্ববাদী দল। তবে এই দুই দলের মধ্যে তফাৎ হল শিবসেনা রামের দল, আর বিজেপি বিভীষণের দল। নেতারা অভিযোগ করেন, বিজেপি কেন্দ্রে এমন নীতি প্রণয়ন করেছে যার ফলে আজ দেশের কৃষকরা অস্তিত্বেরসংকটে।

আরও পড়ুন : বিজেপি বাড়ি গিয়ে উল্টাপাল্টা বললে কান মলে দেবেন : মমতা

এদিন ব্যাপক জমায়েত করা হয়েছিল অফিসার্স ক্লাব মাঠে। সেখানে ঘোষণা করা হল ঝাড়গ্রাম জেলার ৪ টি বিধানসভা আসনেই প্রার্থী দেবে শিবসেনা। ঝাড়গ্রাম আসনে প্রার্থী হবেন সমাজসেবী মধুসূদন সিংহ। তিনিই হলেন শিবসেনার ঝাড়গ্রাম জেলার সভাপতি। এদিন শিবসেনার রাজ্য সাধারণ সম্পাদক অশোক সরকার বলেন, জঙ্গলমহলের কুড়মিদের দাবি তা পূরণ হয়নি।


কুড়মিদের এসটি তালিভুক্ত করার দাবি আমরা সমর্থন করি। এদিন রাজনৈতিক সমাবেশের পাশাপাশি মঞ্চে জঙ্গলমহলের আদিবাসীদের মুলবাসীদের অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। এছাড়া ঝাড়গ্রাম, বেলপাহাড়ি সহ বেশ কিছু এলাকার সিপিএম ও নির্দল কর্মী সমর্থক তারা শিবসেনায় যোগ দেন।

তাঁদের হাতে পতাকা তুলে দেন দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক অশোক সরকার, দলের রাজ্য সভাপতি শান্তি দত্ত প্রমুখ। শিবসেনা ঝাড়গ্রাম জেলার সভাপতি মধুসূদন সিংহ বলেন, আগামী দিনে ভোটকে লক্ষ্য রেখে দলের শীর্ষ নেতারা মহারাষ্ট্র থেকে আসবেন। মধুবাবু বলেন, আমি সমাজসেবা করি, মানুষের পাশে থাকি। তাই আমার বিশ্বাস আমিই জিতছি।


Related Articles

Back to top button