ঝাড়গ্রাম

দলীয় প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা এনে বিজেপিতে তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য

স্বপ্নীল মজুমদার


দলীয় প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা এনে বিজেপিতে তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য - West Bengal News 24


জামবনি: কয়েকদিন আগেই বিজেপি-র তিনজন সদস্যের সঙ্গে একযোগে তৃণমূলের ক্ষমতাসীন চিল্কিগড় গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থার চিঠিতে সই করেছিলেন তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য পারুল ধল। সোমবার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন পারুল। এদিন চিল্কিগড়ের হিজলি গ্রামে দলীয় এক কর্মিসভায় পারুলের হাতে গেরুয়া পতাকা তুলে দেন বিজেপির জেলা সভাপতি সুখময় শতপথী। পারুল বলেন, ‘‘প্রধানের লাগামছাড়া দুর্নীতি ও স্বজনপোষণের বিষয়ে বার বার দলকে জানিয়েও লাভ হয়নি। তাই অনাস্থার চিঠিতে সই করেছিলাম। এবার নতুন বাংলা গড়ার লক্ষ্যে বিজেপিতে যোগ দিয়েছি।’’ জেলা তৃণমূলের সহ-সভাপতি ।প্রসূন ষড়ঙ্গী বলেন, ‘‘পারুলদেবীর ছেলে সমীর ধল আগেই বিজেপিতে গিয়েছেন। প্রত্যাশিতভাবে এবার পারুলদেবীও বিজেপিতে গেলেন। এতে আমাদের দলের কোনও ক্ষতি হবে না।’’

কয়েকদিন আগেই তৃণমূলের ক্ষমতাসীন চিল্কিগড় গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান প্রতিমা দত্তের বিরুদ্ধে আনাস্থা চেয়ে বিডিওকে চিঠি দিয়েছেন উপপ্রধান সহ চার পঞ্চায়েত সদস্য। এঁদের মধ্যে উপপ্রধান যুথিকা মাহাতো সহ তিন জন বিজেপি সদস্য। আর পারুল ছিলেন তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য। গত বৃহস্পতিবার জামবনির বিডিওকে লিখিতভাবে উপপ্রধান যুথিকা মাহাতো সহ চার সদস্য জানান, গোড়া থেকেই প্রধান যথাযথ দায়িত্ব পালন করছেন না। নির্বাচিত সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা না করেই একের পর এক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। প্রধানের বিরুদ্ধে পঞ্চায়েতের তহবিল খরচ নিয়ে অনিয়মেরও অভিযোগ এনেছেন তাঁরা।

দলীয় প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা এনে বিজেপিতে তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য - West Bengal News 24


আরও পড়ুন : ৮০-৯০টা মেয়ের জীবন নষ্ট করেছে নাসির : সাবেক প্রেমিকা

চিল্কিগড় গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট সদস্য ৭ জন। ২০১৮-র পঞ্চায়েত ভোটে অবশ্য তৃণমূলের প্রতীকে নির্বাচিত হন দু’জন। বিজেপির তিনজন সদস্য নির্বাচিত হন। এছাড়াও প্রতিমা সহ দু’জন বিক্ষুব্ধ তৃণমূল অবশ্য নির্দল হিসেবে নির্বাচিত হন। পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনের সময়ে বিজেপির সমর্থনে প্রতিমা প্রধান হন। এরপরে প্রতিমা যোগ দেন বিজেপিতে। মাস খানেক পরে ফের তৃণমূলে যোগ দেন প্রতিমা। পঞ্চায়েতটি তৃণমূলের ক্ষমতাসীন হয়। পঞ্চায়েত আইন অনুযায়ী নির্বাচিত হওয়ার প্রথম আড়াই বছরে প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনা যায় না। সেই সময়সীমা অতিক্রান্ত হয়ে যাবে ফেব্রুয়ারির শেষ নাগাদ। সূত্রের খবর, সেই কারণেই আগে ভাগে প্রতিমার বিরুদ্ধে অনাস্থা এনে ভোটাভুটির জন্য বিডিওকে চিঠি দিয়েছেন চার সদস্য।

পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে চিল্কিগড় এলাকার তৃণমূল নেতা সমীর ধল বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। সমীরের মা পঞ্চায়েত সদস্য পারুলও এবার বিজেপিতে যোগ দিলেন। ২০১৮-র পঞ্চায়েত ভোটে প্রার্থী দেওয়া নিয়ে জামবনি ব্লক তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর বিবাদ চরমে পৌঁছয়। যার ফলে, তৎকালীন তৃণমূল নেতা সমীরের বিরোধী গোষ্ঠীর প্রতিমা দত্ত দলীয় টিকিট না পেয়ে নির্দলে দাঁড়িয়েছিলেন। সমীরের মা পারুলকে প্রধানপদে আটকাতে বিজেপির সমর্থন নিয়ে প্রধান হন প্রতিমা। সেই সমীকরণেই সমীরের মা পারুলও এবার বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে প্রতিমার বিরুদ্ধে আনাস্থা এনেছেন।



Related Articles

Back to top button