জাতীয়

কাঠের অভাব, এবার মরা পোড়ানোর জন্য গোবর ব্যবহারের অনুমতি দিল্লিতে


করোনার বাড়বাড়ন্তে কার্যত দিশাহারা রাজধানী। লকডাউন ঘোষণার পরেও পরিস্থিতির বিশেষ উন্নতি হয়নি। প্রায় প্রতিদিনই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন বহু মানুষ।

শ্মশান আর কবরস্থান গুলোতে স্তুপাকারে জমে উঠছে মৃতদেহ। মৃতদেহ সত্‍কারের জন্য এবার গোবর ব্যবহারের অনুমতি দিল দিল্লির দুই সংগঠন। কোভিড পরিস্থিতিতে দিল্লিতে গণচিতা জ্বলছে বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরেই।

মৃতদেহের চাপ সামাল দেওয়ার জন্য উপযুক্ত কাঠের অভাব দেখা দিয়েছে বিভিন্ন শ্মশানে। তার ফলেই এই অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এখন গোবর আর খড়ের মিশ্রণ দিয়েই মরা পোড়ানো হবে দিল্লির একাধিক শ্মশানে।

এ প্রসঙ্গে উত্তর দিল্লি পুরসভার মেয়র জয় প্রকাশ জানিয়েছেন, তাঁদের আওতায় থাকা গো-শালা গুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই সেখানে গোবরকে মৃতদেহ সত্‍কারের উপযোগী করে তোলার মেশিন বসানো হবে। তার খরচও বহন করবে সিএসআর ফান্ড।

একটি বিবৃতির মাধ্যমে মঙ্গলবার উত্তর দিল্লি পুরসভার তরফে সত্‍কারে জ্বালানি কাঠের পরিবর্তে গোবর ব্যবহারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দিল্লিতে খড় পুড়িয়ে ফেলার জন্য বায়ুদূষণের অভিযোগ এর আগেও উঠেছে অনেকবার। এই ব্যবস্থায় কৃষকদের সেই প্রবণতা খানিক কমবে বলেই মনে করছেন অনেকে।

কৃষকরা খড় পুড়িয়ে না ফেলে সত্‍কারের জন্য এবার তা বিক্রি করবেন। ফলে একসঙ্গে দুটি কাজ হবে। পূর্ব দিল্লি পুরসভার তরফে জানানো হয়েছে গোবর ব্যবহারের এই ব্যবস্থা তারা সাত থেকে আট দিন আগেই চালু করেছে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত দিল্লিতে মৃত্যু হয়েছে মোট ১৬ হাজার ৯৬৬ জনের। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১১ লাখের বেশি। সুস্থ হয়েছেন ১০.৮৫ লাখ মানুষ।

সুত্র :দ্য ওয়াল

আরও পড়ুন ::

Back to top button