জাতীয়

ইতিবাচক থাকতে মিথ্যে প্রচার, কন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ রাহুল, প্রশান্ত কিশোরের

ইতিবাচক থাকতে মিথ্যে প্রচার, কন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ রাহুল, প্রশান্ত কিশোরের - West Bengal News 24

দেশে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনা। নদীতে ভাসছে শব। অক্সিজেনের অভাবে হাসপাতালে প্রাণ যাচ্ছে রোগীদের। আর এই পরিস্থিতিতে দেশে এবং দেশের বাইরে ইতিবাচক ভাবমূর্তি তৈরি করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে কেন্দ্রীয় সরকার। বাস্তব পরিস্থিতি থেকে সরকারের এই নজর ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টার বিরুদ্ধে এবার একসঙ্গে সরব হলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি এবং ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর।

ট্যুইটারে রাহুল গান্ধি লিখেছেন, ‘যে সমস্ত পরিবার, স্বাস্থ্যকর্মীরা নিজেদের প্রিয়জনকে হারিয়েছেন, অক্সিজেন, হাসপাতাল, ওষুধের অভাবে হয়রান হচ্ছেন, এই ইতিবাচক থাকার মিথ্যে আশ্বাসটা তাঁদের প্রতি পরিহাস মাত্র। কারও মাথা বালিতে গুঁজে দেওয়াটা ইতিবাচক থাকা নয়, এটা আমাদের নাগরিকদের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা।’

আবার ভোট কুশলী এবং মোদি সরকারের অন্যতম সমালোচক প্রশান্ত কিশোরের মতে, ইতিবাচক থাকার নামে সরকারের সমর্থনে এই প্রচার বিরক্তিকর। তিনি ট্যুইটারে লিখেছেন, ‘চারপাশে যখন এমন বিপর্যয় নেমে আসছে, গোটা দেশ শোকে মূহ্যমান হয়ে রয়েছে, তখন ইতিবাচক থাকার নামে মিথ্যাচার এবং আত্মপ্রচার চালিয়ে যাওয়ার এই চেষ্টা বিরক্তিকর।’

করোনার দ্বিতীয় ধাক্কা সামাল দিতে মোদি সরকার চরম ব্যর্থ বলে শুধু দেশের মধ্যে নয়, বিদেশেও সমালোচনা শুরু হয়েছে। সূত্রের খবর, এই সমালোচনার পাল্টা সরকারের পক্ষে প্রচারের কৌশল নিয়েছে মোদি সরকার, বিজেপি এবং আরএসএস। তার পরেই কেন্দ্রীয় সরকার এবং বিজেপি-র এই কৌশলকে আক্রমণের পথে হাঁটলেন রাহুল গান্ধি এবং প্রশান্ত কিশোর।

এনডিটিভি-র খবর অনুযায়ী, গত সপ্তাহে কেন্দ্রীয় সরকারের জয়েন্ট সেক্রেটারি পদমর্যাদার আধিকারিকদের একটি কর্মশালায় ডাকা হয়েছিল। সেখানে কীভাবে সরকারের ইতিবাচক কাজকর্মের প্রচার আরও বেশি করে ছড়িয়ে দিতে হবে, সেই সংক্রান্ত পরামর্শ দেওয়া হয় ওই আধিকারিকদের। এর পাশাপাশি অক্সিজেন এক্সপ্রেস চালানো সহ সংবাদমাধ্যমে সরকারের ইতিবাচক কাজের বিভিন্ন প্রতিবেদনও ট্যুইট করতে শুরু করেছে কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন দফতর।

সূত্র : এনডিটিভি

আরও পড়ুন ::

Back to top button