বিচিত্রতা

গ্রেপ্তারের ভয়ে সোনার হার ফেরত দিল চোর

আলওয়ারের এক জহুরী ফেরত পেলেন হারিয়ে যাওয়া দুটি সোনার হার। যোগেশ গোয়েল গত ২৫ জুন পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন, তাঁর দোকান থেকে দুটি সোনার হার চুরি গেছে। যার ওজন ৩৫ গ্রাম। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করে। এরপর ১৮ জুলাই সোনার দোকানের মালিক গোয়েলের নামে একটি কুরিয়ার আসে। যা খুলে তিনি দেখেন, তার মধ্যে রয়েছে হারিয়ে যাওয়া সোনার হার দুটি। সঙ্গে তাঁকে উদ্দেশ্য করে লেখা একটি চিঠি। যে চিঠি মহেশ নামে এক ব্যক্তি লিখেছে। যেখানে বলা ছিল, ‘‌আমরা সোনার হার দুটি ফিরিয়ে দিতে দোকানে এসেছিলাম। কিন্তু পুলিশ দেখে আমরা চলে যাই। তারপর আপনার ঠিকানা বের করে সোনার হার দুটি পাঠালাম। আশা করি আমাদের অন্তর থেকে ক্ষমা করবেন।’‌

গোয়েল পুলিশকে জানিয়েছিলেন, গত ২৫ জুন তিনজন ব্যক্তি তাঁর দোকানে আসে। ৫৬০০ টাকা দিয়ে রুপোর একটি গহনা কেনে তারা। এরপর দোকানের বাকি কর্মচারীদের চোখে ধুলো দিয়ে দুটি সোনার হার চুরি করে পালিয়ে যায়। এরপর পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে তিনজনকে শনাক্ত করে।

তার মধ্যে একজনকে পুলিশ গ্রেপ্তারও করেছে। যে গাড়ি করে দোকানে আসা হয়েছিল, সেটিও বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। এরপর বাকি দুই অভিযুক্তের খোঁজে পুলিশ গুরুগ্রাম যায়। কিন্তু তাদের নাগাল পাওয়া যায়নি।

তারপরই সোনার হার ফেরত পান দোকান মালিক। যদিও পুলিশ তদন্ত বন্ধ করতে রাজি নয়। বাকি দুই অভিযুক্তকে ধরার জন্য তাঁরা তত্‍পর। ঘটনার তদন্তে থাকা এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘‌এখানে সহানুভূতির কোনও জায়গা নেই।

কেন অভিযুক্তরা ২৩ দিন অপেক্ষা করল হার ফেরত দেওয়ার জন্য?‌ গ্রেপ্তার হওয়ার ভয়েই এই কাজ করা হয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজ দেখেছি। প্রমাণ রয়েছে হাতে। বুঝতে পেরেছে অভিযুক্তরা উচ্চবিত্ত পরিবারের সদস্য।’‌

আরও পড়ুন ::

Back to top button