রাজ্য

ছত্রধরের গৃহবন্দি থাকার আবেদন খারিজ, জেল হেফাজতে পাঠাল এনআইএ আদালত

ছত্রধরের গৃহবন্দি থাকার আবেদন খারিজ, জেল হেফাজতে পাঠাল এনআইএ আদালত - West Bengal News 24

আশাহত হলেন ছত্রধর মাহাতো। তাঁর গৃহবন্দি থাকার আবেদন খারিজ করল এনআই-র বিশেষ আদালত। শরীর ভালো না থাকায় আইনজীবী মারফত এনআইএর বিশেষ আদালতে আবেদন করেন এই নেতা। আদালত জানিয়েছে এই আবেদন গ্রহণ করা সম্ভব নয় এবং তাঁকে জেলেই থাকতে হবে। আগামী ১৫ জুন এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

রাজধানী এক্সপ্রেস হাইজ্যাক মামলায় এনআইএ গ্রেফতার করেছে ছত্রধর মাহাতো। চলতি বছরের ২৮ মার্চ ছত্রধর মাহাতোকে গ্রেফতার করা হয়। তারপর থেকেই জেল হেফাজতে রয়েছেন এই নেতা। সম্প্রতি নারদ মামলায় রাজ্যের চার হেভিওয়েট নেতাকে গৃহবন্দির নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। অনেকেরই ধারনা সেই দেখে ছত্রধরও তাঁর আইনজীবির মারফত এই একই আবেদন করেছিলেন। যদিও তা গৃহীত হল না।

২০০৯ সালে ২৭ অক্টোবর ছত্রধর মাহাতোকে জেল থেকে মুক্তির দাবিতে জনসাধারনের কমিটি ঝাড়গ্রামের কাছে বাঁশতলা স্টেশনে রাজধানী এক্সপ্রেস হাইজ্যাক করেছিল। সেই ঘটনাতেই এনআইএ ছত্রধর মাহাতোকে গ্রেফতার করেছে। যদিও ঘটনার সময় জেলে বন্দি ছিলেন ছত্রধর। এই মামলার সঙ্গে সিপিএম নেতা প্রবীর মাহাতো খুনের মামলায়ও অভিযুক্ত করা হয় তাঁকে।

এনআইএ’র দাবি এই দুটি ঘটনাই ছত্রধরের মস্তিষ্কপ্রসূত। জেলে বসে ছত্রধর নিজেই গোটা ষড়যন্ত্রের পরিকল্পনা করছিলেন। তাই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ছত্রধর জেলে থাকলেও এখন নানা শারীরিক সমস্যায় ভুগছেন। সেই কারনেই গৃহবন্দি থাকার আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু সেই আবেদন খারিজ হয়ে গেল। যদিও মূল মামলার শুনানি চলবে। আগামী ১৫ জুন ফের মামলার শুনানির দিন ধার্য হয়েছে।

যেহেতু রাজ্যে এখন কোভিড পরিস্থিতি চলছে। তাই এদিন মামলার শুনানিতে রাজ্যের কাছে বিচারক জানতে চান, জেলে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে কিনা? অভিযুক্তকে কি ঠিকমতো চিকিত্‍সা পাচ্ছেন? উত্তরে রাজ্যের তরফে জানানো হয়, জেলে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। চিকিত্‍সারও ব্যবস্থা রয়েছে। একইসঙ্গে এইদন ছত্রধর মাহাতোকে গৃহবন্দি রাখার বিরোধিতা করে এনআইএ। তাঁদের বক্তব্য, জনসাধারণ কমিটির প্রাক্তন এই নেতা যথেষ্ট প্রভাবশালী। জেলের বাইরে থাকলে মামলাকে প্রভাবিত করতে পারেন তিনি। দু’পক্ষের সওয়াল-জবাব শোনার ছত্রধরের আবেদন খারিজ করে দেয় আদালত।

সুত্র : এই মুহুর্তে

আরও পড়ুন ::

Back to top button