বলিউড

ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেও তাদের পেশা অভিনয়

ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেও তাদের পেশা অভিনয় - West Bengal News 24

সফল ক্যারিয়ারের জন্য সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অনেকে নানা ডিগ্রি নিয়ে থাকেন। কিন্তু অনেকেই আছেন এক বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি নিয়েও অন্য সেক্টরে সফল ক্যারিয়ার গড়েছেন। ভারতের দক্ষিণী সিনেমার বেশ কজন অভিনয়শিল্পী রয়েছেন, যারা পড়াশোনা করেছেন ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে। কিন্তু ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নিয়েছেন অভিনয়। এমন কজন অভিনয়শিল্পীকে নিয়ে সাজানো হয়েছে এই প্রতিবেদন।

সোনু সুদ

ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেও তাদের পেশা অভিনয় - West Bengal News 24

১৯৭৩ সালের ৩০ জুলাই, পাঞ্জাবের মোগা শহরে জন্মগ্রহণ করেন সোনু সুদ। এই শহরে কেটেছে তার স্কুল জীবন। পরবর্তীতে উচ্চ শিক্ষার জন্য পাড়ি জমান নাগপুরে। সেখানকার যশবন্ত রাও চভন কলেজ অব ইঞ্জিনিয়ারিং থেকে ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। ইঞ্জিনিয়ারিং পড়েও এ পেশায় যুক্ত হননি সোনু। বরং নাম লেখান অভিনয়ে। ১৯৯৯ সালে তামিল ভাষার ‘কালাঝাগড়’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় পা রাখেন এই অভিনেতা। তারপর বিভিন্ন ভাষার ৫৯টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন সোনু সুদ।

আনুশকা শেঠি

ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেও তাদের পেশা অভিনয় - West Bengal News 24

সুইটি শেঠি তার পারিবারিক নাম। কিন্তু রুপালি পর্দায় আনুশকা শেঠি হিসেবে পরিচিত। ১৯৮১ সালের ৭ নভেম্বর কর্নাটকের বেঙ্গালুরুতে জন্মগ্রহণ করেন আনুশকা শেঠি। সেখানেই স্কুল জীবন শেষ করেছেন এই অভিনেত্রী। পরে বেঙ্গালুরুর মাউন্ট কারমেল কলেজ থেকে ব্যাচেলর অব কম্পিউটার অ্যাপলিকেশনস বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি নেন আনুশকা। কম্পিউটার অ্যাপলিকেশনস বিষয়ে উচ্চতর ডিগ্রি নিয়েও এ পেশায় যাননি আনুশকা। ২০০৫ সালে তেলেগু ভাষার ‘সুপার’ সিনেমার মাধ্যমে অভিনয়ে নাম লেখান ‘বাহুবলি’ খ্যাত এই অভিনেত্রী।

তাপসী পান্নু

ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেও তাদের পেশা অভিনয় - West Bengal News 24

দক্ষিণী সিনেমার দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী তাপসী পান্নু। ১৯৮৭ সালের ১ আগস্ট নয়া দিল্লিতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। এই শহরে কেটেছে তার স্কুল জীবন। পরে গুরু তেজ বাহাদুর ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি থেকে কম্পিউটার সায়েন্স অ‌্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন তাপসী। পড়াশোনা শেষ করে সফটওয়‌্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্ম জীবন শুরু করেন তিনি। পরে ক‌্যারিয়ার হিসেবে বেছে নেন মডেলিং। ২০১০ সালে তেলেগু ভাষার ‘ঝুমানড়ি নাদাম’ সিনেমার মাধ‌্যমে বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে তার। এরপর অনেক ব‌্যবসাসফল সিনেমা উপহার দেন তিনি। ইঞ্জিনিয়ারিং পেশা ছেড়ে অভিনয়কে পেশা হিসেবে গ্রহণ করেছেন এই অভিনেত্রী।

কৃতি শ্যানন

ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেও তাদের পেশা অভিনয় - West Bengal News 24

ভারতীয় সিনেমার আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী কৃতি শ‌্যানন। ১৯৯০ সালের ২৭ জুলাই নয়া দিল্লিতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তারও স্কুল জীবন কেটেছে এই শহরে। পরে জয়পি ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি থেকে ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশনে ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতক শেষ করেন তিনি। কিন্তু পেশা হিসেবে এই মাধ‌্যমকে বেছে নেননি। মডেলিংয়ের মাধ্যমে শোবিজ অঙ্গনে পা রাখেন কৃতি। ২০১৪ সালে তেলেগু ভাষার ‘নেনোকাড়িন’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেন। তার অভিনীত প্রথম বলিউড সিনেমা ‘হিরোপান্তি’।

মন্তব্য করুন ..

আরও পড়ুন ::

Back to top button