বিচিত্রতা

বিশ্বরেকর্ড গড়লেন দক্ষিণ আফ্রিকার মহিলা, একসঙ্গে ১০ সন্তানের জন্ম দিলেন

গত মাসের ঘটনা। মরোক্কোতে একইসঙ্গে ন’টি বাচ্চার জন্ম দিয়েছিলেন এক মহিলা। গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে তাঁর নাম উঠে গিয়েছিল। মাস ঘুরতে না ঘুরতেই আবার ভাঙল সেই রেকর্ড। এবার একসঙ্গে দশ-দশটা সন্তানের জন্ম দিলেন এক মহিলা। নাম গোসিয়ামে থামারা সিথোল। বছর সাঁইত্রিশের সিথোল দক্ষিণ আফ্রিকার বাসিন্দা।

হাসপাতালে ভর্তির পর ডাক্তাররা পরীক্ষা করে প্রথমে জানান, তিনি ছয় সন্তানের মা হতে চলেছেন। কিছুদিন বাদে স্ক্যান করার পর সংখ্যাটা বেড়ে আট হয়। কিন্তু অস্ত্রোপচারের সময় দেখা যায়, আরও দুই নবজাতক উঁকি দিচ্ছে। অর্থাত্‍, সবমিলিয়ে দশ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন সিথোল। গোটা ঘটনায় হকচকিয়ে গেছেন তাঁর স্বামী এবহো সোতেত্‍সি।

প্রিটোরিয়া নিউজকে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে তিনি বলেন, ‘যত দূর জানতে পেরেছি, সাত ছেলে আর তিন মেয়ে। আমার স্ত্রী সাত দিন সাত মাস অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। এখন আমি সত্যি অবাক। আর খুব খুশিও।’ অন্যদিকে সিথোলের জবাব, সমস্তকিছুই স্বাভাবিকভাবে হয়েছে। তিনি কোনও ফার্টিলিটি ট্রিটমেন্টের পথে হাঁটেননি। উল্লেখ্য, এই প্রথম নয়। এর আগেও যমজ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন সিথোল।

ছ’বছরের দুই মেয়ে আপাতত বাড়িতে নতুন সদস্যদের অপেক্ষায় দিন কাটাচ্ছে। হাসপাতালে আসার পর কেমন সময় গেছে? সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে সিথোল বলেন, ‘মনে মনে ভেবেছিলাম, আগে যখন যমজ হয়েছে, তখন এবার সেটা বেড়ে বড়জোর তিন হবে। কিন্তু চিকিত্‍সকের মুখে সংখ্যাটা শোনার পর আমি হতভম্ব হয়ে পড়ি।’

পেশায় একটি স্থানীয় দোকানের ম্যানেজার সিথোল একইসঙ্গে যোগ করেন, ‘পাশাপাশি দুশ্চিন্তাও হচ্ছিল। কীভাবে এতগুলি বাচ্চা একইসঙ্গে পেটে ধরবে? কারও মাথা-হাত-পেট জোড়া লেগে যাবে না তো? এমনই কথা মাথায় ঘুরত। চিকিত্‍সকেরা ভিজিটে এলেই এসব নিয়ে প্রশ্ন করতাম। কিন্তু তাঁরা আশ্বস্ত করে জানান, আমার গর্ভাশয় নাকি আপনা থেকেই প্রসারিত হচ্ছে।

ফলে দুর্ভাবনার কোনও কারণ নেই। শেষমেশ ঈশ্বরের কৃপায় সত্যি তেমনটাই হল।’ অন্যদিকে এমন আশ্চর্য ঘটনার খবর চাউর হতেই নড়েচড়ে বসেছে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড। সংস্থার মুখপাত্র নিউ ইয়র্ক টাইমসকে জানান, ‘আমরা ইতিমধ্যে বিষয়টি সম্পর্কে জেনেছি। দশ নবজাতকের মা গোসিয়ামে থামারা সিথোল ও তাঁর পরিবারকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাই। আমাদের রেকর্ড টিম ও বিশেষজ্ঞেরা দ্রুত কাজ শুরু করবেন।’

সুত্র : দ্য ওয়াল

আরও পড়ুন ::

Back to top button