খেলা

রোমাঞ্চকর জয়ে রানার্সআপ হয়ে নকআউটে ক্রোয়েশিয়া

Croatia vs Scotland : রোমাঞ্চকর জয়ে রানার্সআপ হয়ে নকআউটে ক্রোয়েশিয়া - West Bengal News 24

সুযোগ ছিল দুই দলের সামনেই। জিতলেই মিলবে শেষ ষোলোর টিকিট- এমন ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিলেন ক্রোয়েশিয়ার তারকা মিডফিল্ডার লুকা মদ্রিচ। তার জাদুকরী পারফরম্যান্সে স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে নকআউটে পৌঁছে গেছে বিশ্বকাপের ফাইনালিস্টরা।

নিজেদের ঘরের মাঠে হওয়া ম্যাচটিতে স্কটিশদের বিপক্ষে ৩-১ গোলের ব্যবধানে সহজ জয় পেয়েছে ক্রোয়েশিয়া। যার ফলে ডি গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে থেকেই নকআউট নিশ্চিত হয়েছে তাদের।

একই গ্রুপ থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউটে খেলতে নামবে ইংল্যান্ড। পাশাপাশি তৃতীয় দল হিসেবে শেষ ষোলোর টিকিট পেয়েছে চেক রিপাবলিক; যারা শেষ ম্যাচের আগে ছিল পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে।

মঙ্গলবার রাতে নিজেদের ঘরের মাঠে খেলা ম্যাচটিতে আধিপত্য বিস্তার করেছে ক্রোয়েশিয়াই। তবে কম যায়নি স্কটল্যান্ডও, বাঁচা-মরার লড়াইয়ে ক্রোয়াট রক্ষণভাগকে বেশ কয়েকবার বিপদে ফেলেছে তারা। কিন্তু সাফল্য পেয়েছে মাত্র একবার।

ম্যাচের ১৭ মিনিটের সময় জোসিপ জুরানোভিচের এগিয়ে দেয়া বলে হেড করে নিকোলা ভ্লাসিচের কাছে পাঠান ইভান পেরিসিচ। গোলবারের সামনে পাওয়া বলটি ঠাণ্ডা মাথায় জালে প্রবেশ করান ২৩ বছর বয়সী ভ্লাসিচ, ক্রোয়েশিয়া পায় প্রথম গোল।

তবে বিরতিতে যাওয়ার আগেই এই গোল শোধ করে দেয় স্কটল্যান্ড। প্রথমার্ধের বাঁশি বাজার মিনিট তিনেক আগে প্রায় ২০ গজ দূর থেকে ক্রোয়েশিয়ার রক্ষণকে ফাঁকি দিয়ে দলকে সমতায় ফেরান স্কটিশ মিডফিল্ডার ক্যালাম ম্যাকগ্রেগর। ফলে আশা বেঁচে থাকে স্কটল্যান্ডের,

কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচ পুরোপুরি নিজেদের করে নেয় ক্রোয়াটরা। ম্যাচের ৬২ মিনিটের সময় অসামান্য দক্ষতায় দলকে এগিয়ে দেন লুকা মদ্রিচ। যার সুবাদে ইউরো কাপে ক্রোয়েশিয়ার সবচেয়ে কম বয়সী ও সবচেয়ে বেশি বয়সী গোলদাতার রেকর্ডটি নিজের করে নেন ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক।

২০০৮ সালের ইউরোতে ২২ বছর ২৭৩ দিন বয়সে প্রথম গোল করেছিলেন মদ্রিচ। যা কি না ক্রোয়েশিয়ার সবচেয়ে কম বয়সী গোলের রেকর্ড। আর এবার ৩৫ বছর ২৮৬ দিন বয়সে স্কোরশিটে নাম তুলে সবচেয়ে বেশি বয়সীর রেকর্ডও নিজের করলেন মদ্রিচ। পাশাপাশি ক্রোয়েশিয়ার প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে তিন ইউরোতে (২০০৮, ২০১৬ ও ২০২১) গোল করলেন তিনি।

মদ্রিচের রেকর্ডগড়া গোলের পর কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন ইভান পেরিসিচ। ম্যাচের ৭৭ মিনিটের মাথায় গিয়ে মদ্রিচের এসিস্টে দলের তৃতীয় ও নিজের প্রথম গোলটি করেন পেরিসিচ। জাতীয় দলের জার্সিতে এটি তার ৩০তম গোল। এর সুবাদে ৩-১ গোলের জয় পায় ক্রোয়েশিয়া।

ডি গ্রুপের তিন ম্যাচ শেষে ৭ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে ইংল্যান্ড। সমান ৪ পয়েন্ট করে ক্রোয়েশিয়া ও চেক রিপাবলিকের। তবে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় দুই নম্বর স্থান পেয়েছে ক্রোয়েশিয়া। আর তিন ম্যাচে ১ পয়েন্ট নিয়ে বিদায় নিলো স্কটল্যান্ড।

আরও পড়ুন ::

Back to top button