শিক্ষা

৩১ জুলাইয়ের মধ্যে রাজ্যের বোর্ডগুলিকে দ্বাদশ শ্রেণির ফল প্রকাশের নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

জুন মাসের মাঝামাঝি সেন্ট্রাল বোর্ড অব সেকেন্ডারি এডুকেশন শীর্ষ আদালতে জানিয়েছে, কীভাবে তারা দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রদের মূল্যায়ন করবে। ৩১ জুলাই ফল প্রকাশ করবে সিবিএসই। বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্ট প্রতিটি রাজ্যের বোর্ডকে নির্দেশ দিল, ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে তাদেরও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার ফল প্রকাশ করতে হবে।

কীভাবে ছাত্রছাত্রীদের মূল্যায়ন করা হবে, সে বিষয়ে তাদের নির্দিষ্ট পরিকল্পনা করতে হবে ১০ দিনের মধ্যে। এর আগে সিবিএসই জানায়, নম্বর দেওয়ার ক্ষেত্রে পড়ুয়াদের দশম ও একাদশ শ্রেণির ফলাফলকে বিচার করা হবে। এ ছাড়া দ্বাদশের আভ্যন্তরীণ মূল্যায়ন, প্র‍্যাক্টিক্যাল টেস্ট, টার্ম টেস্টের মতো প্রি-বোর্ড পরীক্ষার ফলাফলও গুরুত্ব পাবে। বিচারপতি এ এম খানউইলকর এবং দীনেশ মাহেশ্বরীর যুগ্ম বেঞ্চকে জমা দেওয়া দেওয়া রিপোর্টে বোর্ড জানায়, পরীক্ষার্থীদের দ্বাদশ শ্রেণির প্রি-বোর্ডে প্রাপ্ত নম্বরের ৪০ শতাংশকে গ্রহণ করা হবে।

পাশাপাশি একাদশের চূড়ান্ত পরীক্ষার ৩০ শতাংশ নম্বর এবং দশম শ্রেণির সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া তিনটি বিষয়ের প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে ৩০ শতাংশ নম্বর দেওয়া হবে। কিন্তু এই সামগ্রিক যোগ্যতা নির্ধারণের শর্ত যদি কেউ পূরণ করতে না পারেন? অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে বেনুগোপালের বক্তব্য, ‘তিন বছরের পঠনপাঠনের মধ্যে কোনও পড়ুয়া যদি যোগ্যতা পূরণে ব্যর্থ হন, তখন তাদের বাধ্যতামূলকভাবে আরও একবার পরীক্ষায় বসতে হবে।

সেক্ষেত্রে তাঁদের ‘এসেনশিয়াল রিপিট’ অথবা ‘কম্পার্টমেন্ট’ তালিকায় রাখা হবে।’ তাছাড়া বোর্ডের মূল্যায়নে সন্তুষ্ট না হলে কোনও পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে পারবে। সেই পরীক্ষা হবে ১৫ অগাস্ট থেকে ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে। কেবল মূল বিষয়গুলিরই পরীক্ষা নেওয়া হবে।

সেই পরীক্ষায় পাওয়া নম্বরকেই চূড়ান্ত বলে ধরা হবে। এর আগে দেশের শীর্ষ আদালতের কাছে দ্বাদশের মূল্যায়নের পদ্ধতি বিষয়ে রিপোর্ট দাখিল করে কাউন্সিল ফর ইন্ডিয়ান স্কুল সার্টিফিকেট এক্সামিনেশন বা সিআইএসসিই। তারা একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির স্কুলের পরীক্ষার নম্বরের ভিত্তিতে মূল্যায়নের কথা জানায়।

সূত্র : দ্য ওয়াল

আরও পড়ুন ::

Back to top button