জাতীয়

পেটের দায়ে লেবুর রস, আইসক্রিম বিক্রি করতেন মহিলা, আজ সেই এলাকার পুলিশ অফিসার

Annie Siva: পেটের দায়ে লেবুর রস, আইসক্রিম বিক্রি করতেন মহিলা, আজ সেই এলাকার পুলিশ অফিসার - West Bengal News 24

ইচ্ছে থাকলে উপায় হয়’, এই প্রবাদকে ফের সত্যি করে দেখালেন এক যুবতী। অদম্য ইচ্ছাশক্তির উপর ভর করে প্রমাণ করলেন, পরিশ্রমের বিকল্প কিছু নেই। কথা হচ্ছে কেরলের অ্যানি শিবার। বছর একত্রিশের অ্যানি একসময় রাস্তায় রাস্তায় আইসক্রিম ও লেবু বিক্রি করে সংসার চালাতেন। সেই অ্যানিই এখন ভারকালা থানার সাব-ইন্সপেক্টর।

অ্যানির সংগ্রামের শুরু যখন তাঁর ১৮ বছর বয়স, তখন থেকে। বাড়ির অমতে বিয়ে করেছিলেন কিশোরী অ্যানি। বিয়ের পর এক সন্তানও হয় দম্পতির। কিন্তু, তার কিছুদিনের মধ্যেই ‘আসল’ চেহারা বেরিয়ে আসে অ্যানির স্বামীর। সে সন্তান ও স্ত্রী’কে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। তারপর থেকে সন্তানকে নিজের উপার্জনেই মানুষ .করছেন অ্যানি|

আর পেট চালাতে অ্যানি কী না করেননি। রাস্তায় আইসক্রিম বিক্রি করেছেন। করেছেন আরও নানা কাজ। কিন্তু, স্বপ্ন দেখা ছাড়েননি। অত কষ্টের মধ্যেও পড়াশোনা চালিয়ে গিয়েছেন একটানা। চাকরির পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েছেন। পরীক্ষা দিয়েছেন। অবশেষে সম্প্রতি তাঁর স্বপ্ন সফল হয়েছে।

অ্যানিকে নিয়ে গর্বিত কেরল পুলিশ। তাঁকে নিয়ে ট্যুইট করেছে পুলিশ। সেখানে পুলিশ প্রশাসনের আবেগঘন পোস্ট, ‘একজন সত্যিকারের মডেল অ্যানি। মাত্র ৬ মাস বয়সী সন্তানকে নিয়ে ঘর ছাড়তে হয়েছিল অ্যানি। তখন তাঁরও বয়স মাত্র ১৮। কিন্তু, হাল ছাড়েনি অ্যানি। এখন তিনি একজন পুলিশ অফিসার। সত্যিই গর্ব করার মতো ঘটনা।’

যাকে নিয়ে এত আলোচনা সেই অ্যানি জানালেন, ‘কয়েকদিন আগেই আমি জানতে পারি ভারকালা থানায় আমার পোস্টিং। এই দিনটি দেখার জন্য আমি আমার সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে স্বপ্ন দেখেছি, পরিশ্রম করেছি। কারও সাহায্য পাইনি। কিন্তু, হাল ছাড়িনি।’

কীভাবে জীবনধারণ করতেন? এই প্রশ্নের উত্তরে অ্যানি বলেন, ‘আমি পথে পথে লেবু বিক্রি করেছি। আইসক্রিমের দোকান দিয়েছি। আ.রও ছোটো ছোটো ব্যবসা করেছি। কিন্তু, কোনওটাতেই সাফল্য পাইনি। তখন একজন সহৃদয় মানুষ এগিয়ে আসেন। আমার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। আমি পুলিশের পরীক্ষা দেওয়া শুরু করি। অবশেষে সাফল্য পেলাম।’

কেরলের রাজনৈতিক দলগুলিও অ্যানিকে কুর্নিশ জানিয়েছে। যেমন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা ভিডি সাথিসানের ট্যুইটবার্তা, ‘এই পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় অ্যানির সংগ্রাম এক দৃষ্টান্ত। ওঁর জীবন সত্যিই সবাইকে অনুপ্রেরণা দেবে।’

সূত্র : আজতক

আরও পড়ুন ::

Back to top button