কলকাতা

‘বউকে গলা টিপে খুন করে এসেছি’, চিত্‍পুর থানায় আত্মসমর্পণ স্বামীর

‘বউকে গলা টিপে খুন করে এসেছি’, চিত্‍পুর থানায় আত্মসমর্পণ স্বামীর - West Bengal News 24

বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে। এই সন্দেহে স্ত্রীকে গলাটিপে খুন করল স্বামী। তারপর নিজেই গিয়ে হাজির হল থানায়। চিতপুরের বীরপাড়া মনীন্দ্র রোডের এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শহর কলকাতা জুড়ে। অভিযুক্তের নাম সঞ্জয় দাস। তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অন্যদিকে ময়নাতদন্তের জন্য তার স্ত্রী মুনমুনের দেহ পাঠানো হয়েছে আরজিকর হাসপাতালে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন সকাল ১০ টা নাগাদ চিত্‍পুর থানায় হাজির হন সঞ্জয় দাস। পুলিশকে সে জানায়, স্ত্রীকে গলা টিপে মেরে ফেলেছে। তড়িঘড়ি সঞ্জয়কে নিয়েই তাদের বাড়িতে যায় পুলিশ। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, মাটিতে লুটিয়ে পড়ে রয়েছে মুনমুনের দেহ। গলায় আঘাতের চিহ্নও রয়েছে।

শ্বাসরোধ করেই খুন করা হয়েছে বলেই প্রাথমিক তদন্তে মনে করছে পুলিশ। সঞ্জয় পুলিশকে জানিয়েছে, বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের সন্দেহেই খুন করেছে সে। জানা গিয়েছে, এলাকায় একটি কেকের দোকানে কাজ করতেন মুনমুন। তাঁর স্বামী সঞ্জয় দাস পেশায় একজন অটোচালক। ২১ বছরের দাম্পত্য জীবনে তাদের প্রাপ্তবয়স্ক এক পুত্র সন্তানও রয়েছে। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, তেমন কোনও অশান্তি ছিলনা পরিবারে।

অন্যদিকে, মেয়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে ছুটে আসেন মুনমুনের বাপের বাড়ির সদস্যরা। মৃতের বোন জানিয়েছেন, এ দিন সকালে চিত্‍পুর থানা থেকে ফোন যায় তাঁর ভাইয়ের কাছেই। পুলিশ জানায়, তাঁদের দিদি আত্মহত্যা করেছেন। আরজিকর হাসপাতালে যেতে বলা হয় তাঁদের। এরপরই মুনমুনের বাড়িতে এসে আসল ঘটনা জানতে পারেন তাঁরা।

মুনমুনের বোন জানান, তাঁর দিদি টিফিন বক্সে খাবার নিয়ে কাজের জন্য বেরচ্ছিলেন, সেই সময়ই এই ঘটনা ঘটেছে। সত্যিই কি বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কের সন্দেহেই এই কাণ্ড ঘটিয়েছে সঞ্জয়, না কি অন্য কোনও কারণ রয়েছে। তা খতিয়ে দেখতে তাঁদের সন্তান ও প্রতিবেশীদের সঙ্গে কথা বলছে পুলিশ।

সুত্র : এই মুহুর্তে

আরও পড়ুন ::

Back to top button