রাজনীতিরাজ্য

‘একজনও পরিযায়ী অনাহারে মারা যায়নি’, তাঁদের প্রত্যেককে ১০০ দিনের কাজ দেওয়া হয়েছে’ : সুব্রত মুখোপাধ্যায়

বিভিন্ন সময়ে ভিন রাজ্য থেকে পরিযায়ী শ্রমিকরা বাংলায় ফিরে এসেছেন, আর তাঁদের প্রত্যেককে কাজ দিয়েছে রাজ্য সরকার, এদিন এমনটাই দাবি করলেন রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। সুব্রত বাবু জানিয়েছেন, কোভিড পর্বে রাজ্যে ফিরেছেন বহু মানুষ। এছাড়া ইয়াস আর আমফান বিপর্যয়ের সময়েও ভিন রাজ্য থেকে কয়েক কোটি পরিযায়ী শ্রমিক ফিরে এসেছেন। তাঁদের প্রত্যেককে ১০০ দিনের কাজ দেওয়া হয়েছে।

কেউ একদিনও অভুক্ত থাকেননি। তাই এ রাজ্যে না খেতে পেয়ে কেউ মারা গেছেন, এমন পরিসংখ্যান নেই। তাঁর দাবি বিভিন্ন মিলিয়ে ১০ কোটি বার পরিযায়ী শ্রমিকের ১০০ দিনের কাজের সংস্থান করা হয়েছে। এদিন ১০০ দিনের কাজ নিয়ে মমতা সরকারের ঢালাও প্রশংসা করেছেন তৃণমূলের অভিজিত্‍ সিনহা রায়। তিনি বলেছেন, গ্রাম বাংলার মানুষের কাছে ১০০ দিনের কাজ অত্যন্ত কার্যকরী।

মানুষের আর্থিক সহায়তা সুনিশ্চিত করে এই কাজ। প্রায় ১ কোটি ১৮ লক্ষ মানুষ এই কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। তাঁদের মধ্যে অন্তত ১৫ লক্ষ ৫২ হাজার মানুষ চলতি বছরে নতুন করে এই কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন। তবে এ প্রসঙ্গে বিরোধিতা করেছেন বিজেপির দীপক বর্মন। তাঁর দাবি বিভিন্ন জায়গায় চাইলেও ১০০ দিনের কাজ করতে পারছেন না মানুষ।

এমনকি কোথাও কোথাও বিজেপি করার অপরাধে এই কাজের সুযোগ থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন দীপক। তিনি আরও বলেছেন ২০১৮-১৯ সালে যাঁরা ১০০ দিনের কাজ করেছেন চলতি বছরে তাঁরা আর কাজ পাচ্ছেন না। এর তীব্র সমালোচনা করেছেন তিনি।

ভোটের আগে ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপির প্রশ্ন, কেন এর দরকার পড়ল? তার কারণ গ্রামে গ্রামে পঞ্চায়েত ঠিকমতো কাজ করছে না। জব কার্ড দেওয়া বন্ধ করা হয়েছে। গ্রামগুলিতে শৌচাগারের অবস্থাও শোচনীয় বলে দাবি করেছেন দীপক বর্মন। আর তাই দুয়ারে সরকারের মতো প্রকল্পের দরকার পড়েছে।

পঞ্চায়েত কাটমানি নিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি। তবে শাসকদলের তরফে বিজেপির অভিযোগ নস্যাত্‍ করা হয়েছে। রাজ্য সরকারের কল্যাণকর প্রকল্পগুলিকেই সামনে তুলে ধরতে চাইছেন তাঁরা। এদিন সুব্রত মুখোপাধ্যায়দের বক্তব্য থেকেই সে কথা পরিষ্কার।

সূত্র : দ্য ওয়াল

আরও পড়ুন ::

Back to top button