রাজনীতিরাজ্য

রাজ্যে প্রতিবছর স্বচ্ছতার সঙ্গেই প্রাথমিক, উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ হবে, ঘোষণা শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর

রাজ্যের বর্তমান শাসক দলের বিরুদ্ধে একটাই বিষয়ে লাগাতার আক্রমণ করেন বিরোধীরা। চাকরি নেই, দীর্ঘ দশবছরের শাসনে মাত্র একবার এসএসসিতে নিয়োগ হয়েছে। বাকি ফর্ম ফিলাপ হলেও, ইন্টারভিউ পরীক্ষা আটকে গিয়েছে এসএসসি কিংবা প্রাথমিকের টেটে। অস্বচ্ছতার অভিযোগে বারবার মামলা হয়েছে আদালতে।

অবশেষে উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের উপর থেকে হাইকোর্ট স্থগিতাদেশ তুলে নিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার স্বচ্ছতার সঙ্গে শিক্ষক নিয়োগ ও হাইকোর্টের নিয়ম মেনেই উচ্চপ্রাথমিকে নিয়োগে ইন্টারভিউ তালিকা বার করা হয়। তারপরেই নিয়োগ প্রক্রিয়া থেকে স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়া হয়। তাতে খুশি শিক্ষা দফতর।

এদিন এই বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু নবান্নে জানিয়েছেন, ‘আদালতকে ধন্যবাদ জানাব। স্কুল সার্ভিস কমিশনের তরফে ইন্টারভিউ নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে সব জানিয়ে দেওয়া হবে। এবার থেকে প্রতি বছর প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিকের টেট নেব। রাজ্যের নিয়োগ প্রক্রিয়া স্বচ্ছ রাখার চেষ্টা করা হবে।’ আজ বিকাশভবনে এই বিষয়ে সাংবাদিক বৈঠক করা হয়। স্বচ্ছ ভাবে শিক্ষক নিয়োগে ও কীভাবে করোনা পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেওয়া হবে সেই নিয়ে জানানো হয় কমিশনের তরফে।

সাংবাদিক বৈঠকে কমিশনের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ‘আদালতের নির্দেশের পরে অচলাবস্থা কেটেছে। নিয়ম মেনেই স্বচ্ছতার সঙ্গে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে। প্রথমে ইন্টারভিউ ও তার পরে সেই ভিত্তিতে মেধাতালিকা তৈরি করে নিয়োগ হবে। কারও যদি নিয়োগ প্রক্রিয়া ঘিরে কোনও অসন্তোষ থাকে তাহলে তিনি স্কুল সার্ভিস কমিশনের দফতরে অভিযোগ জানাতে পারেন। সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে। এ বার থেকে প্রতি বছর শিক্ষক নিয়োগ হবে বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।’

সূত্র : এই মুহুর্তে

আরও পড়ুন ::

Back to top button