আন্তর্জাতিক

চোখের সামনেই হাইতির প্রেসিডেন্টকে হ’ত্যার বিভীষিকাময় বিবরণ দিলেন তার স্ত্রী

চোখের সামনেই হাইতির প্রেসিডেন্ট জোভেনেল মোইসি হত্যাকাণ্ডের বিভীষিকাময় সেই ঘটনা নিয়ে প্রথমবার মুখ খুললেন হামলায় গুরুতর আহত ফার্স্ট লেডি মার্টিন মোইসি।

শনিবার এক টুইটে অডিও বার্তায় ওই ঘটনার লোমহর্ষক বর্ণনা দেন। গত ৭ জুন হাইতির প্রেসিডেন্টের বাড়িতে হামলায় আহত হন ফার্স্টলেডি মার্টিন মোইসি। অল্পের জন্য রক্ষা পান তিনি। গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখনও মিয়ামি হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। হামলায় জড়িত থাকার সন্দেহে ধরপাকড় চলছে দেশজুড়ে।

হাসপাতাল থেকেই তিনি সেদিন কী ঘটেছিল জানিয়েছেন বিশ্বকে। চোখের সামনে স্বামীকে লুটিয়ে পড়তে দেখেন মার্টিন মোইসি। বলেন, ‘হামলাকারীরা মুহূর্তের মধ্যেই বাড়িতে ঢুকে পড়ে। আমার স্বামীকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে হত্যা করে।’

‘একজন প্রেসিডেন্টকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে ওরা। তাকে কোন কথা বলার সুযোগটুকুও দেয়া হয়নি।’ হামলাকারীরা প্রেসিডেন্টের স্বপ্নকে হত্যা করতে চায় বলেও জানান তিনি।

মার্টিন মোইসি আরও বলেন, আমি কান্নকাটি করছি এটা সত্য। তবে আমরা তার পথ ভুলে যেতে পারি না। আমার স্বামী, আমাদের প্রেসিডেন্টকে আমরা অনেক বেশি ভালোবাসি। তার রক্ত বৃথা যেতে দিতে পারি না।

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে হাইতির প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেন ৫৩ বছর বয়সী জোভেনেল মোইসি। তাকে খুনের পেছনে হামলাকারীদের উদ্দেশ্যে জানা যায়নি। কারা এই হামলার নির্দেশ দাতা তা এখনও অন্ধকারেই রয়ে গেছে। ২৮ জন বিদেশি ভাড়াটে সেনার একটি দল গত বুধবার প্রেসিডেন্টের বাসভবনে হামলা চালিয়ে তাকে হত্যা করে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সূত্র : আলজাজিরা

আরও পড়ুন ::

Back to top button