রূপচর্চা

৫টি সহজ এবং কার্যকরী উপায়ে ব্রণ দূর করুন রাতারাতি!

ব্রণ সমস্যায় ভোগেন নি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া ভার। ছেলে-মেয়ে উভয় এই সমস্যায় পড়ে থাকেন। ব্রণ যে কোন ধরণের ত্বকে হয়ে থাকে। তবে তৈলাক্ত ত্বকে একটু বেশি পরিমাণে হয়ে থাকে। ব্রণ দূর করার জন্য কত চেষ্টাই না করা হয়। কত ক্রিম ব্যবহার করা হয়, কাড়ি কাড়ি টাকা খরচ করা হয় এই ব্রণ দূর করার জন্য। কিন্তু এইসব কতটুকু কার্যকর হয়? অনেক সময় এইগুলো ত্বকের ক্ষতি করে থাকে। কিছু ঘরোয়া উপায় আছে, যা দ্বারা রাতারাতি ব্রণ দূর করা সম্ভব।

১। মধু
অনেক রোগের চিকিৎসায় মধু ব্যবহার করা হয়ে থাকে। ঠিক তেমনি ব্রণ দূর করতে এটি বেশ কার্যকর। ব্রণের উপর মধু লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি দ্রুত ব্রণ দূর করে দেবে। এছাড়া মধু, দারুচিনি গুঁড়ো এবং লেবুর রস মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে ব্রণে লাগাতে পারেন। এটি দ্রুত ব্রণ দূর করে থাকে।

২। লেবু
একটি তুলোর বলে লেবুর রস লাগিয়ে নিন। এবার এটি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ব্রনে লাগান। এছাড়া এক টেবিল চামচ লেবুর রস এবং এক চা চামচ দারুচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এটি সারারাত ব্রণে লাগিয়ে রাখুন। সকালে কুসুম গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সেনসেটিভ ত্বকের অধিকারীরা এটি ব্যবহারে বিরত থাকুন।

৩। ডিমের সাদা অংশ
ডিমের সাদা অংশে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এবং অ্যামিউনো অ্যাসিড রয়েছে যা ব্রণে জীবাণু ধ্বংস করে দেয়। ডিমের সাদা অংশ খুব ভাল করে ফেটে নিন। এবার এটি আঙুল দিয়ে ব্রণের উপর লাগিয়ে ফেলুন। ৩-৪ মিনিট শুকানোর জন্য অপেক্ষা করুন। বাকী ডিমের সাদা অংশটুকু মুখে প্যাক হিসেবে লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এটি ব্রণ দূর করার সাথে সাথে ত্বক নরম কোমল করে তুলবে।

৪। রসুন
রসুনে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান ব্রণ দূর করে থাকে। রসুনের কোয়া কুচি করে রস করে নিন। এবার এর সাথে কয়েক ফোঁটা জল মিশিয়ে নিন। এটি ব্রণে লাগান। এছাড়া ২-৩ টি রসুনের কোয়া জলে ১০-১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। এবার রসুনের পেস্ট এবং অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে ব্রণের উপর লাগিয়ে ফেলুন। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৫। টুথপেস্ট
রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে কিছু টুথপেস্ট ব্রণের উপর লাগিয়ে নিন। এভাবে সারা রাত রাখুন। সকালে জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি দ্রুত ব্রণ শুকিয়ে ফেলে থাকে।

ব্রণ চিরতরে দূর করার জন্য পরিবর্তন করতে হবে খাদ্য অভ্যাস। প্রচুর পরিমাণ ফল এবং শাক সবজি প্রতিদিনকার খাদ্য তালিকায় রাখুন। এছাড়া প্রচুর পরিমাণ জল পান করুন।

আরও পড়ুন ::

Back to top button