উঃ ২৪ পরগনা

তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, টিটাগড়ে পার্টি অফিসের সামনে গুলি চালানোর অভিযোগ

আবারও প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ঘিরে শ্যুট আউট ভাঙচুরের জেরে চাঞ্চল্য ছড়ালো উত্তর ২৪ পরগণার টিটাগড় মোহনপুর এলাকায়। রক্তাক্ত বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মী।

এই বিষয়ে তৃণমূল সদস্য লাল্টু দাসের অভিযোগ, মোহনপুর চককাঠালিয়া এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরে অসামাজিক কার্যকলাপ চালানো হচ্ছে। এবং পাশে একটি জমি আছে। সেই সম্পপ্তি দখল করতে চাইছে বেশ কয়েকজন যুবক আর তাদের মদত দিচ্ছেন ব্যারাকপুর পুরসভার চেয়ারম্যান উত্তম দাস ও লালন পাসোয়ান।

বারবার দলকে জানানো হলেও কর্ণপাত করেনি বলে অভিযোগ। দিনের পর দিন এইভাবেই চলছে। এলাকার পঞ্চায়েত সদস্য দীর্ঘ দিন ধরে এর প্রতিবাদ করায় হঠাত্‍ই বেশ কিছু বহিরাগত যুবক এলাকায় ঢুকে তাদের মারধর করে বলে অভিযোগ। তৃণমূল কর্মীর দোকান, তৃণমূলের ক্লাব ভাঙচুরের পাশাপাশি তৃণমূল সদস্য লাল্টু দাসকে লক্ষ্য করে তৃণমূল কার্যালয়ের সামনে আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকানোর অভিযোগ ওঠে।

লাল্টু দাসের আরও অভিযোগ, এরপরই হঠাত্‍ই বাইকে করে ১৫, ১৬ জন দুষ্কৃতী আসে। যাদের প্রত্যেকের হাতে ধারালো অস্ত্র ছিল বলে অভিযোগ। দুষ্কৃতীরা শুন্যে গুলি করতে করতে পালায়। এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মী আহত হয়েছেন।

ঘটনাস্থলে পৌঁছায় টিটাগড় থানার পুলিশ।

যদিও এই বিষয়ে ব্যারাকপুরের পুরো প্রশাসক উত্তম দাস তার বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এই বিষয় তাঁর মন্তব্য, ‘কে বা কারা করেছে। কিছু ঘটনাই জানিনা। আর মোহনপুর পঞ্চায়েতের কোনো বিষয়েই আমরা কিছু করিনা। এদের কার সঙ্গে কী ঝামেলা জানিনা’ বলে বিষয়টি এড়িয়ে যান ব্যারাকপুরের পুরো প্রশাসক উত্তম দাস।

সূত্র : প্রথম কলকাতা

আরও পড়ুন ::

Back to top button