বলিউড

প্রয়াত তিনবার জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রি

২০১৮ সালে ‘বাধাই হো’ সিনেমার মাধ্যমে তৃতীয়বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন সুরেখা সিক্রি। এ ছবির দাদিমা চরিত্রের মাধ্যমে হাল প্রজন্মের মন জয় করেছিলেন তিনি। সেই বিখ্যাত অভিনেত্রী মারা গেলেন শুক্রবার সকালে। তার বয়স হয়েছি ৭৫ বছর।

বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন সুরেখা। হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হয়ে বলে জানান তার ম্যানেজার। ২০২০ সালে অভিনেত্রীর ব্রেন স্ট্রোকও হয়।

সুরেখার ম্যানেজার জানিয়েছেন, “তিনবার জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রি কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের কারণে শুক্রবার সকালে ৭৫ বছর বয়সে মারা গেলেন। দ্বিতীয়বার ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার পর থেকে নানা ধরনের শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি। আজ সকালে পরিবার ও পরিচারকদের উপস্থিতিতেই তার মৃত্যু হয়। তার পরিবার এই সময়টা একটু নির্জনে কাটাতে চান। ওম সাই রাম।”

সুরেখার জন্ম দিল্লিতে হলেও শৈশব কাটে আলমোরা ও নৈনিতালে। বাবা ছিলেন ভারতীয় বিমান বাহিনীর একজন সেনা অফিসার। ১৯৬৮ সালে ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা থেকে নাট্যতত্ত্বে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি।

১৯৭৮ সালে ‘কিসসা কুর্সি কা’ দিয়ে বলিউডে সুরেখার অভিষেক হয়। একাধিক ধারাবাহিক ও সিনেমায় তাকে দেখা গেছে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে। সহ-অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন তমস (১৯৮৮), মাম্মো (১৯৯৫) ও বাধাই হো (২০১৮) ছবির জন্য।

জোয়া আখতারের ‘ঘোস্ট স্টোরিজ’ ছবিতে শেষবার অভিনয় করেন সুরেখা। তিনি জুবায়েদা, মিস্টার অ্যান্ড মিসেস আইয়ার ও রেইনকোটের মতো ছবিতেও কাজ করেছেন। টেলিভিশনে দেখা গেছে এক থা রাজা এক থি রানী, পরদেশ মে হ্যায় মেরা দিল, মা এক্সচেঞ্জ, সাত ফেরে ও বালিকা বধূ ধারাবাহিকে।

আরও পড়ুন ::

Back to top button