জাতীয়

পাকিস্তান ও বাংলাদেশের সীমান্ত সুরক্ষা নিয়ে নিশ্চিন্ত অমিত শাহ

ছবি সৌজন্যে এএনআই

প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান এবং বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সীমান্তবর্তী যে সব এলাকায় এখনও কাঁটাতার নেই, তা ২০২২ সালের মধ্যেই ঘিরে ফেলা হবে বলে শনিবার জানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। এ দিন বিএসএফ-এর একটি অনুষ্ঠানে এ কথা জানালেন তিনি।

সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে প্রতিবেশী পাকিস্তান ও বাংলাদেশের সীমান্তে বেড়া দেওয়া তাত্‍পর্যপূর্ণ উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘শূন্যস্থান পুরোপুরি পূরণ না হলে সীমান্তে বেড়া দেওয়ার কোনো সুবিধা মিলবে না। আমি নিশ্চিত করতে চাই যে সীমান্তে বেড়া দেওয়ার কোনো ফাঁক থাকবে না। ২০২২ সালের মধ্যেই তা পূরণ করা হবে’।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, ‘ফেন্সিং প্রজেক্ট সম্পর্কিত সমস্ত সমস্যা সমাধান করা হয়েছে এবং ভবিষ্যতে লক্ষ্য বাস্তবায়নের সময় যদি কোও প্রতিবন্ধকতা দেখা দেয় তবে সেগুলিও সমাধান করা হবে’।

ভারত দীর্ঘদিন ধরে পাকিস্তান ও বাংলাদেশের সঙ্গে স্পর্শকাতর সীমান্ত এলাকায় অনুপ্রবেশ রোধের জন্য বেড়া তৈরি করে চলেছে এবং সীমান্ত সুরক্ষিত করার জন্য একাধিক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কাজ করছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক এবং বিএসএফের সমন্বয়ে সীমান্তে নজরদারি আঁটোসাঁটো করার জন্য কম্প্রিহেনসিভ ইন্টিগ্রেটেড বর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (CIBMS)-এর মাধ্যমে অত্যাধুনিক ফেন্সিং ব্যবস্থা, উন্নত নজরদারি গ্যাজেট এবং অনুপ্রবেশ বিরোধী অ্যালার্ম লাগানোর মতো একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

অমিত শাহ এ দিন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার আগে পর্যন্ত দেশে কোনো আলাদা প্রতিরক্ষা নীতি ছিল না। তখন বিদেশ নীতি প্রতিরক্ষা নীতির দিক নির্দেশনা করত বা প্রভাবিত করত। তবে আজকের দিনে পরিস্থিতি বদলেছে। আর এখন ভারতের সীমান্তকে কেউ চ্যালেঞ্জ জানাতে পারে না’।

সূত্র : খবর অনলাইন

আরও পড়ুন ::

Back to top button