রাজনীতি

২৪-এর আগে মোদী-শাহের ঘরে ঢুকে চ্যালেঞ্জ, এবার গুজরাতেও একুশে জুলাই পালন করবে তৃণমূল

লক্ষ্য দিল্লি, লক্ষ্য ২০২৪, লড়াই ৫৪৩ আসনের। তাই প্রত্যেক রাজ্যেই সংগঠনে জোর দিচ্ছে তৃণমূল। সামনেই ২১ শে জুলাই। তৃণমূল নেত্রী জানিয়েছিলেন তৃতীয়বারের বড় জয়ের জন্য শহীদ দিবসেই উদযাপন করা হবে। কিন্তু করোনার কথা মাথায় রেখে ভার্চুয়ালি সমস্ত অনুষ্ঠান হবে বলে আগেই জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এবারের ভার্চুয়ালি একুশে জুলাই শুধুই পশ্চিমবঙ্গে নয়, ত্রিপুরা, ওড়িশা, বিহার ও উত্তরপ্রদেশ ও দিল্লিতেও পালিত হবে এই কর্মসূচী।

গতকাল রাতেই জানা যায় এই রাজ্যগুলির সঙ্গে এবার খোদ মোদির মডেল রাজ্য গুজরাতেও পালিত হবে ২১ শে জুলাই। ভার্চুয়ালি যতগুলি রাজ্যে ২১ শে জুলাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য শোনানো যায় তাঁর চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। সেই তালিকায় এবার উঠে এল গুজরাতের নাম।

জানা গিয়েছে মোদির রাজ্যে মোট ৩২টি জেলায় একুশে জুলাই পালনের পরিকল্পনা করেছে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের। এদিকে দিল্লিতে ঐতিহাসিক কনস্টিটিউশন হলে জায়েন্ট স্ক্রিনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য শোনানো হবে। সূত্রের খবর, সেখানে উপস্থিত থাকার কথা সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

তৃণমূলের তরফে সর্বভারতীয় স্তরের সমস্ত নেতা-নেত্রীদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে এই ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য। দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঝাঁঝালো বক্তব্য মূলত কেন্দ্রের বিরুদ্ধেই থাকবে বলে জানা গিয়েছে। ২০২৪ এবারের ২১ শে জুলাই-এর উদ্দেশ্যে বলে জানাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস।

দলের সূত্রে জানা গিয়েছে, মূলত বর্তমানের জ্বলন্ত কিছু ইস্যু, যেমন পেট্রোল-ডিজেল, রান্নার গ্যাস, করোনাতে ব্যর্থ কেন্দ্র, পর্যাপ্ত ভ্যাকসিনের জোগান, গঙ্গায় করোনায় মৃতদের দেহ ফেলা, পরিযায়ী শ্রমিক ইস্যু থেকে জিএসটি ও নোটবন্দি, সব বিষয়ে একযোগে কেন্দ্রকে আক্রমণ করবেন নেত্রী। আর তা দেশের সর্বত্র ভার্চুয়ালি ছড়িয়ে পড়বে বলে জানা গিয়েছে।

সূত্র : এই মুহুর্তে

আরও পড়ুন ::

Back to top button