জাতীয়

দেশের প্রথম মহিলা চিকিৎসক ডঃ কাদম্বিনী গঙ্গোপাধ্যায়কে গুগলের বিশেষ সম্মান

রমনীর গুণেই যে সংসার সুখের হবে, সঠিকভাবে সংসার ধর্মই মহিলার একমাত্র লক্ষ্য, এই সমস্ত বাঁধা ধরা প্রথায় যখন একগুঁয়ে সমাজ। সেই সময় নিয়ম ভেঙে দেশের প্রথম মহিলা চিকিৎসক হয়ে ওঠেন বাঙালি মেয়ে কাদম্বিনী গাঙ্গুলি (Kadambini Ganguly)। আজ তাঁর ১৬০-তম জন্মবার্ষিকী। বাঙালির তথা দেশের গর্ব কাদম্বিনীকে সম্মান জানাল বিশ্বের টেক জায়েন্ট গুগল (Google Doodle)। গ্রাফিক্সের মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলেছে সংস্থা।

ভারতের প্রথম নারী চিকিৎসক। উনিশ শতকের শেষদিকে পাশ্চাত্য চিকিৎসার লেখাপড়া শেষ করেন। ডাক্তারের ডিগ্রি অর্জন করেন।

বিহারের ভাগলপুরে জন্মগ্রহণ করেন ডাঃ কাদম্বিনী গাঙ্গুলি। জন্ম হয় ১৮৬১ সালের ১৮ই জুলাই। বাবা ব্রাহ্ম সংস্কারক ব্রজকিশোর বসু। ভাগলপুর স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন বাবা।

সেই সময়ের বাঙালি সমাজ কাদম্বিনীর পড়াশোনা করা মেনে নিতে পারেননি। বেথুন কলেজ থেকে প্রথম মহিলা হিসেবে স্নাতক পাশ করেন তিনি। তারপর ডাক্তারি পড়ার সিদ্ধান্ত নেন। ইউরোপিয়ান মেডিসিন প্রয়োগে অনুশীলন শুরু করেন ১৮৮৬ সালে।

পিসতুতো দাদা মনমোহনের হাত ধরে হিন্দু মহিলা বিদ্যালয়ে লেখাপড়া শুরু করেন কাদম্বিনী। ১৮৮৩ সালে মেডিক্যাল কলেজে ডাক্তারি পড়েন। পাশ করার পর, চিকিৎসা করার অনুমতি পান। ব্রিটিশ শাসনে পরাধীন ভারতে সফল মহিলা হওয়ার কারণে একাধিক বাধার মুখে পড়তে হয় তাঁকে। সেই বাধা পার করে নিজেকে চিকিৎসক হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত করে তোলেন।

সূত্র : ২৪ ঘন্টা

আরও পড়ুন ::

Back to top button