রাজনীতিরাজ্য

উপনির্বাচন করাতে করোনা সংখ্যায় কারচুপি, ‘Non-MLA’ মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমন শুভেন্দুর

বাংলায় উপনির্বাচন করানোর দাবিতে বারবার সরব হয়েছে তৃণমূল (All India Trinamool Congress)। এমনকি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) এও পর্যন্ত বলেছেন যে, যেই কেন্দ্রে উপনির্বাচন হওয়ার কথা সেখানে কোভিডের সংক্রমণের হার একদম কম।

রাজ্যে উপনির্বাচন না করানোর জন্য তৃণমূল এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বরাবরই বিজেপিকে আক্রমণ করে এসেছে। আর এবার উপনির্বাচন করানোয় তৃণমূলের অতি সক্রিয়তা নিয়ে কটাক্ষ করলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)।

নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী অভিযোগ করে বলেন, উপনির্বাচন করানোর জন্য রাজ্য সরকার করোনার সংখ্যা কারচুপি করছে। যদিও, শুভেন্দুবাবুর মন্তব্যের পাল্টা প্রতিক্রিয়াও দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। মঙ্গলবার দুর্গাপুড়ে একটি বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেন শুভেন্দুবাবু। সেখানে ডিপিএল-এর জমি বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ তুলে রাজ্যের বিরুদ্ধে মোর্চা খোলে গেরুয়া শিবির।

শুভেন্দু অধিকারী সেখান থেকে রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘বিজেপিকে ঠেকাতে মিছিল, জনসভা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শাসক দল। আবার কোভিডের পজিটিভিটি রিপোর্টও কম করে দেখানোর নির্দেশ দিয়েছে।” শুভেন্দু বলেন, নন MLA মুখ্যমন্ত্রী ছটফট করছেন। নভেম্বরের ৪ তারিখের মধ্যে জিততে না পারলে ওনার পদ যাবে। প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানিতে আর কেউ নেই মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার। একটাই পোস্ট, বাকি সব ল্যাম্পপোস্ট।”

শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘রাজ্যে উপনির্বাচন করানোর জন্য উনি সব জায়গায় করোনার রিপোর্ট কম করে দেখানোর নির্দেশ দিয়েছেন। উনি বলে দিয়েছেন, এসব না করবে আমি আর মুখ্যমন্ত্রী থাকতে পারব না।” উত্তরাখণ্ডের প্রসঙ্গ টেনে এনে শুভেন্দুবাবু বলেন, ‘উত্তরাখণ্ডে আমাদের নন এমএলএ মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, আমরা পাল্টে এমএলএ-কে মুখ্যমন্ত্রী করেছি। বিজেপি মানুষের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে উপনির্বাচনে যায়নি।”

শুভেন্দুর এই অভিযোগে পাল্টা দিয়েছে ঘাসফুল শিবিরও। তৃণমূলের মুখপাত্র তাপস রায় বলেন, ‘বিরোধী দলনেতা যেই সুরে কথা বলছে, সেটা শুনে এটা স্পষ্ট যে নির্বাচন কমিশন বিজেপির কথামতই সিদ্ধান্ত নিচ্ছে।”

সূত্র : বাংলা হান্ট

আরও পড়ুন ::

Back to top button