রাজ্য

৪৯৯ পেয়ে প্রথম কান্দির রুমানা সুলতানা, এবছর ইতিহাস তৈরি হয়েছে : সভাপতি মহুয়া দাস

উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নম্বর পেলেন মুর্শিদাবাদের কান্দি হাইস্কুলের রুমানা সুলতানা। তাঁর প্রাপ্ত নম্বর হল ৫০০-র মধ্যে ৪৯৯। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের তরফে কোনও ছাত্রীর উচ্চমাধ্যমিকে প্রথম হওয়া সম্ভবত এই প্রথম ঘটল রাজ্যের ইতিহাসে। আজ, বৃহস্পতিবার ফলপ্রকাশের ঘোষণা করতে গিয়ে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি মহুয়া দাস বলেন, ‘এবছর ইতিহাস তৈরি হয়েছে।

অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, এবছর একজনই পেয়েছেন সর্বোচ্চ নম্বর, ৪৯৯। যিনি পেয়েছেন তাঁকে আমি প্রথম বলব না, কিন্তু একজন মাত্র পেয়েছেন এই নম্বর। তিনি একজন মুসলিম।মুর্শিদাবাদ জেলা থেকে এই নম্বর পেয়েছেন ওই মুসলিম ছাত্রী।’ পরে জানা যায়, সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়া মুর্শিদাবাদের ওই ছাত্রীর নাম রুমানা সুলতানা।

রুমানা সুলতানা

সংখ্যালঘু হিসেবে এবং মেয়ে হিসেবে রুমানার এই সাফল্য যে বিশেষ প্রশংসার দাবি রাখে, তা বলাই বাহুল্য। মুর্শিদাবাদের কান্দির রাজা মণীন্দ্র চন্দ্র উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী রুমানা সুলতানা। বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী রুমানা কান্দি থানার অন্তর্গত শিবরামবাটি এলাকার বাসিন্দা। তাঁর বাবা রবিউল আলম ভরতপুর গয়েশাবাদ অচলাবিদ্যাপীঠ প্রধান শিক্ষক। মা সুলতানা পারভিন শিক্ষিকা।

এবছর মোট ৮ লক্ষ ১৯ হাজার ২০২ জন পরীক্ষা দিয়েছিলেন। পাশের হার ৯৭.৬৯ শতাংশ। ৩ লক্ষ ১৯ হাজার ৩২৭ জন পাশ করেছেন ফার্স্ট ডিভিশনে। এক থেকে দশের মধ্যে রয়েছেন মোট ৮৬ জন পরীক্ষার্থী। সর্বোচ্চ নম্বর ৫০০-র মধ্যে ৪৯৯। রুমানা সুলতানা বরাবরই ভাল ছাত্রী হিসেবে জেলার মুখ উজ্জ্বল করে এসেছেন।

২০১৯ সালের মাধ্যমিকেও তিনি রাজ্যের মধ্যে পঞ্চম হয়েছিলেন ৬৭৮ নম্বর পেয়ে। আশা ছিল, উচ্চমাধ্যমিকেও ভাল ফল হবে। তবে কোভিড পরিস্থিতিতে সবকিছুই বদলে গেছে অনেকটাই। তার মধ্যেই এত ভাল ফল করায় গর্বিত জেলাবাসী। ভবিষ্যতে বিজ্ঞানী হতে চান রুমানা।

সূত্র : দ্য ওয়াল

আরও পড়ুন ::

Back to top button